মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ইরানের বিরুদ্ধে নজিরবিহীন ও কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তীব্র সমালোচনা হচ্ছে। এমনকি আমেরিকার ইউরোপীয় মিত্র দেশগুলোও ট্রাম্পের এ পদক্ষেপকে মেনে নিতে পারেনি। চীনের পর এবার রাশিয়াও করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ইরানকে সহায়তার জন্য দেশটির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার জন্য আমেরিকার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে ইরানের বিরুদ্ধে আমেরিকার অন্যায় নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার আহ্বান জানায়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ইরান কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছে এবং এ জন্য মস্কো খুবই উদ্বিগ্ন’। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার আহ্বান জানিয়ে আরো বলেছে, ‘মার্কিন অমানবিক নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানে করোনা ভাইরাস মোকাবেলা করা কঠিন হয়ে পড়েছে’।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পসহ দেশটির অন্যান্য কর্মকর্তারা সম্প্রতি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় লোক দেখানো ইরানকে সহযোগিতা করার দাবি করেছেন। তারা এও দাবি করেছেন করোনা মোকাবেলায় ইরানকে সহযোগিতার অংশ হিসেবে দেশটির ওপর কোনো সীমাবদ্ধতা আরোপ করা হয়নি এবং খাদ্য, ওষুধ ও অন্যান্য চিকিৎসা সামগ্রীর ওপর কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। তবে বাস্তবতার সঙ্গে মার্কিন কর্মকর্তাদের এসব দাবির কোনো মিল নেই। মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ইরান বিদেশ থেকে কোনো চিকিৎসা সামগ্রী আমদানি করতে পারছে না। ইরানের পণ্য আমদানিকারক বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও ব্যাংকের ওপর আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা দিয়ে রেখেছে। ফলে অন্যান্য জরুরি পণ্য সামগ্রী তো দূরের কথা ওষুধও আমদানি করতে পারছে না। এ ব্যাপারে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তেনিও গুতেরেসের কাছে লেখা চিঠিতে বলেছেন, ‘করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ইরানের নিজস্ব সামর্থ্য থাকলেও মার্কিন বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানকে যথেষ্ট বেগ পেতে হচ্ছে’।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, আমেরিকার এ অমানবিক নীতির কারণে চীন ও রাশিয়া ছাড়াও পরমাণু সমঝোতায় সইকারী অন্যান্য দেশও প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে। চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কিং শাংগ এক টুইটবার্তায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলার জন্য তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার জন্য ওয়াশিংটনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সকল মানবিয় মূল্যবোধের খেলাপ এবং এতে করে করোনা মোকাবেলায় ইরানকে সহায়তার জন্য জাতিসংঘসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার পদক্ষেপ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, আন্তর্জাতিক সমাজের আহ্বান সত্বেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক সন্ত্রাসবাদ ও চিকিৎসা খাতে সন্ত্রাসবাদ অব্যাহত রেখেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য