আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার ও যুদ্ধ বন্ধে হওয়া ঐতিহাসিক চুক্তি স্বাক্ষরের চারদিনের মাথায়ই যুক্তরাষ্ট্র তালেবান যোদ্ধাদের লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালিয়েছে।

বুধবার দক্ষিণাঞ্চলীয় হেলমান্দ প্রদেশে এ হামলা চালানো হয় বলে আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্র বাহিনীর এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে।

দেড় যুগেরও বেশি সময় ধরে চলা রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ বন্ধে শনিবার কাতারের দোহায় তালেবান প্রতিনিধি ও ওয়াশিংটনের মধ্যে চুক্তি হয়েছিল।

চুক্তি অনুযায়ী তালেবানরা আফগানিস্তানে থাকা বিদেশি বাহিনীর ওপর আর হামলা না চালানোর আশ্বাস এবং আফগান সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনা শুরুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। নিজেদের নিয়ন্ত্রিত এলাকায় আল-কায়েদাকে তৎপরতা চালাতে না দেওয়ারও অঙ্গীকার করেছিল তারা।

শর্ত মেনে চললে ১৪ মাসের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সব সৈন্য প্রত্যাহার করার প্রতিশ্রুতি দেয় যুক্তরাষ্ট্র ও তার নেটো মিত্ররা।

তালেবানরা পরে জানায়, তাদের চুক্তিতে বিদেশি বাহিনীর ওপর হামলা না করার কথা থাকলেও আফগান বাহিনীর ওপর হামলা আগের মতোই অব্যাহত থাকবে।

তালেবান যোদ্ধারা হেলমান্দে আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর চেকপোস্টে হামলা চালালে পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় বুধবার এ বিমান হামলা হয়েছে বলে টুইটারে বলেছেন আফগানিস্তানে মার্কিন বাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল সনি লেগেট।

তিনি জানান, ওয়াশিংটন শান্তির জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হলেও তালেবানদেরও তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে হবে এবং ‘অপ্রয়োজনীয় হামলা’ বন্ধ করতে হবে। বুধবারের হামলাটি ‘আত্মরক্ষামূলক’ ছিল বলেও ভাষ্য তার।

বিমান হামলায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানায়নি কোনো গণমাধ্যম। তাৎক্ষণিকভাবে তালেবানদেরও কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য