করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ‘যুদ্ধ পরিকল্পনা’ প্রকাশ করেছে ব্রিটেন সরকার। এ জন্য সেনা মোতায়েনের মতো সিদ্ধান্ত নেওয়া যেতে পারে বলে পরিকল্পনায় বলা হয়েছে। মঙ্গলবার দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলোতে এ খবর প্রকাশ করা হয়।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগ এক টুইট বার্তায় জানায়, দেশটিতে ৩ মার্চ পর্যন্ত ৫১ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

এমন অবস্থায় করোনার বিস্তার রোধে ২৮ পৃষ্ঠার একটি পরিকল্পনা প্রকাশ করেছে ব্রিটেন। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সভাপতিত্বে এক জরুরি বৈঠকে তিন মাসের জন্য এই পরিকল্পনা নেওয়া হয়। যাকে ‘যুদ্ধ পরিকল্পনা’ বলা হচ্ছে।

পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে, পুলিশ নিম্ন স্তরের অপরাধকে বাদ দিয়ে করোনার বিস্তার রোধে কাজ করতে পারে। এছাড়া এই ভাইরাস যদি ব্যাপক আকার ধারণ করে তাহলে সেনা মোতায়েন করা যেতে পারে।

রোগীর চাপ কমাতে হাসপাতালে জায়গা খালি করা যেতে পারে। করোনা ভাইরাসে ভুগছে না এমন রোগীদেরও হাসপাতাল থেকে বাড়ি পাঠানো যেতে পারে, তবে মারাত্মক কোনো রোগী ছাড়া।

দেশের সকল কর্মস্থলে সপ্তাহে পাঁচজনের মধ্যে একজন কাজে অনুপস্থিত থাকতে পারে। কিছু ক্ষেত্রে পরিবারিকভাবে বা পৃথকভাবে লোককে আলাদা রাখা যেতে পারে।

পরিকল্পনা প্রকাশের পর প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন জানান, যুক্তরাজ্যে করোনা ভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে সরকার ভাইরাস প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। এ জন্য জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে।

এদিকে ইতোমধ্যে বিশ্বের ৭৩ দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। এতে এখন পর্যন্ত তিন হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে ৯০ হাজার।

বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশ ভারতেও করোনা ভাইরাসের সন্ধান মিলেছে। সবশেষ দিল্লি ও তেলেঙ্গানায় আক্রান্ত ব্যক্তি পাওয়া যায়। এ নিয়ে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছয়জনে দাঁড়িয়েছে। খবর: ডেইলি মেইল

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য