IMG_1842বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ বীরগঞ্জ গত বুধবার উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের কৈকুড়ি গ্রামে ইট ভাটার গ্যাসে প্রায় দুইশত বিঘা বোরো ধান পুড়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলা কৃষি বিভাগ ও প্রশাসন পুড়ে যাওয়া মাঠ পরিদর্শন করেছেন। কৃষকদের অভিযোগের পৃক্ষিতেঘটনা তদন্তে স্থানীয় প্রশাসন ৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে। চার দিনের মধ্যে কমিটির রির্পোটের ভিত্তিতে কৃষকের ক্ষতির পরিমাণ বিবেচনা কওে ভাটা মালিকের কাছ থেকে ক্ষতি প’রণ আদায় করা হবে বলে জানা গেছে।

এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের কৈকুড়ি গ্রামে মের্সাস জ্যোস্ন ব্রিক্সস নামের ইট ভাটা স্থাপন করা হয়। দীর্ঘদিন ধরে এই ভাটা চললেও এবারই প্রথম তিনি একটি জিগজ্যাক ইট ভাটা অর্থাৎ হাওয়া ভাটায় রূপান্তর করেন। বর্তমানে ভাটায় ইট পোড়ানো শেষ হওয়ায় গত সপ্তাহে কর্মচারীরা ভাটার গ্যাস ছেড়ে দেন। এতে ছেড়ে দেওয়া গ্যাসে ভাটার আশেপাশের প্রায় দুইশত বিঘা জমির বোরো ধান পুড়ে য়ায়। এ অবস্থায় গত মঙ্গলবার ১১টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ক্ষতিপুরণ এবং ফসলী এলাকা হতে ইট-ভাটা সরিয়ে নেওয়ার দাবিতে বীরগঞ্জ-গোলাপগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

বিক্ষোভকারী ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক মোঃ তরিকুল ইসলাম, রামপাল রায়,মোঃ মমিনুল ইসলাম, দধিনাথ রায় জানান, অপরিকল্পিত ভাবে গড়ে উঠা ইট-ভাটার কারণে আমরা বিগত বছরের ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছি। অভিযোগ করের কোন লাভ হয়নি। তাই বাঁচার জন্য রাস্তায় নেমেছি।

সংবাদ পেয়ে বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবু জাফর, শিক্ষা অফিসার কখ আলাওল হাদী, উপসহকারী কৃষি অফিসার মোঃ মুক্তার হোসেন এবং বীরগঞ্জ থানার এসআই লুৎফর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ বিক্ষোভকারী কৃষকদের সাথে আলোচনায় বসেন।
IMG_1834
আলোচনা শেষে বিকেল সাড়ে ৫টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবু জাফর ইট-ভাটা মালিককে ৭ দিনের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের ক্ষতিপুরণ দিতে নির্দেশ প্রদান করেন এবং যদি ব্যর্থ হয় তাহলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে কৃষকদের ক্ষতিপুরণ আদায় করে   দেওয়ার প্রতিশ্র“তি দেন। বিক্ষোভকারীদের উদ্যেশ্যে মাইকের মাধ্যমে এমন ঘোষনা দিলে বিক্ষোভকারী কৃষকরা তাদের অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

উপজেলা প্রশাসন উপ সহকারী কৃষি অফিসার শামসুল আলমকে প্রধান ও আব্দুল মাজেদ, তোফাজ্জল হোসেন, আনিছুর রহমান ও মুক্তার হোসেন কে সদস্য করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটিকে আগামী চার কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের পৃক্ষিতে ব্যাবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে সংশ্লিষ্ঠরা। ইট ভাটা মালিক রেন্টু কুমার সাহা জানান, এবার প্রথম জিগজ্যাক ভাটা করার কারনে বুঝতে না পেরে কর্মচারীরা একবারে গ্যাস ছেড়ে দেয়ায় ফসলের ক্ষতি হয়েছে।

তিনি এরজন্য কৃষকদের প্রয়োজনীয় ক্ষতিপ’রণ দেওয়ার অঙ্গিকার করেন। তদন্ত কমিটির প্রধান উপ সহকারী কৃষি অফিসার শামসুল আলম জানান অবশ্যই কৃষকের স্বার্থ অক্ষুন্ন রেখে যথা সময়ে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য