অলস দিনে কিংবা পরিশ্রন্ত শরীরে এড়াতে হবে অস্বাস্থ্যকর খাবার।

অতিরিক্ত কাজ বা রাতে ঘুম ভালো না হলে ক্লান্ত হওয়া স্বাভাবিক। তবে ক্লান্তি কাটাতে অনেকেই ঝুঁকে পড়েন মুখরোচক খাবারের দিকে। কেউ হয়ত কায়েক কাপ চা কিংবা কফি পান করেন। তবে এগুলো কোনোটাই স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়।

পুষ্টি-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে ক্লান্তিতে যে সকল খাবার খাওয়া উপকারী সে সম্পর্কে জানানো হল।

যেসব খাবার মিলিয়ে খাওয়া ভালো

অবসন্ন অবস্থায় মুখরোচক অস্বাস্থ্যকর খাবারের দিকে ঝোঁক বাড়ে। এই অবস্থা এড়াতে ‘কমপ্লেক্স কার্ব’ প্রোটিন এবং স্বাস্থ্যকর চর্বির সমন্বিত খাবার গ্রহণ করা উচিত। এতে শরীরে শক্তিও মিলবে পাশাপাশি অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার ইচ্ছেও চলে যাবে। ক্লান্তি কাটাতে শরীরে প্রয়োজন ‘গ্লুকোজ’। সঠিক মাত্রায় ‘গ্লুকোজ’ শরীর না থাকলে ভর করবে অলসতা।

স্বাস্থ্যকর যেসব খাবার মিলিয়ে খাওয়া যেতে পারে সেগুলোর কিছু নাম এখানে দেওয়া হল।

– ওটসের সঙ্গে কয়েক রকমের বেরি ও বাদাম

– পূর্ণ শস্য বা ‘হোল-গ্রেইন’ থেকে তৈরি রুটির টোস্ট সঙ্গে ডিম।

– বিভিন্ন রকমের সবজি ও ডাল, তেল দিয়ে পরিবেশন করা।

– কাঠবাদাম বা আখরোট ও ফল।

– সাদা গ্রীক দইয়ের সঙ্গে দারুচিনি ও বেরি।

মিষ্টি থেকে দূরে থাকতে হবে

অবসাদগ্রস্ত অবস্থায় মিষ্টি খাবারের চাহিদা বেড়ে যায়। তবে মিষ্টি-জাতীয় খাবার উপকারের চেয়ে অপকার করে বেশি। চিনি ক্ষণিকের জন্য পেট ভরা অনুভূতি দেয়। তাই যতটা সম্ভব চিনি থেকে দূরে থাকতে হবে। ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণে রাখতে না পারলে ফল বা বাদাম খাওয়া ভালো।

আর্দ্র থাকুন

সুস্থ থাকতে নিজেকে আর্দ্র রাখা জরুরি। বিশেষত, যখন আপনি ক্লান্ত। ক্লান্ত কোষের সচল হওয়ার জন্য পানির প্রয়োজন। তাই ক্লান্তি দূর করতে পর্যাপ্ত পানি পান করুন। পানি পানের সময় এতে লেবুর রস বা অন্যান্য রসালো ফল- তরমুজ, শসা, লেটুস ইত্যাদি যোগ করতে পারেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য