ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) কর্তৃক বেনাপোল ও ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে কর্মরত সিএন্ডএফ এজেন্ট প্রতিনিধিদের নানাভাবে হয়রানির প্রতিবাদে সকল ধরনের আমদানি ও রফতানি কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। আজ বুধবার সকাল থেকে এ কার্যক্রম বন্ধ থাকে। তবে পণ্য লোড ও আনলোড স্বাভাবিক গতিতে চলছে।

বেনাপোল সিএন্ডএফ স্টাফ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাজেদুর রহমান জানান, ভারত থেকে কোন পণ্য আমদানি হওয়ার সময় বাংলাদেশি সিএন্ডএফ এজেন্ট প্রতিনিধিরা ভারতের পেট্রাপোল সিএন্ডএফ অফিসে গিয়ে আমদানি সংক্রান্ত বিভিন্ন ডকুমেন্টস নিয়ে আসে। একইভাবে ভারতীয়রাও বেনাপোল চেকপোস্টে এসে রপ্তানিকৃত পণ্যর ডকুমেন্টস নিয়ে যায়।

এ নিয়ম দু’দেশের ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে। কিন্তু হঠাৎ করে গতকাল মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে বিএসএফ দু’দেশের সিএন্ডএফ এজেন্ট প্রতিনিধিদের যাওয়া-আসা বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে আমদানি রফতানি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস আনা-নেওয়া করতে না পারায় কোন পণ্যের গেট পাশ করা সম্ভব হয়নি। গেট পাশ না হওয়ায় দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ হয়ে গেছে।

তিন আরো জানান, তবে সোমবার গেট পাশ করা পণ্যবাহী ট্রাকগুলি গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত বেনাপোল বন্দরে আমদানি হয়ে আসে। তবে আজ (বুধবার) সকাল থেকে আমদানি রফতানি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ রয়েছে। বিএসএফ কর্তৃক এ ধরনের হয়রানির প্রতিবাদে বেনাপোল পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বন্ধ রয়েছে।

এদিকে আমদানি রফতানি বন্ধ থাকার কারণে দু’দেশের বন্দর এলাকায় আটকা পড়েছে শতশত পণ্যবাহী ট্রাক। যার অধিকাংশই পচনশীল পণ্য ও বাংলাদেশের গার্মেন্টস শিল্পের কাঁচামাল রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য