জার্মানির হানাও শহরে দুটি সিসা বারে বন্দুক হামলার ঘটনায় সন্দেহভাজন এক হামলাকারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার নিজ বাড়ি থেকেই ডানপন্থী সন্দেহভাজন ওই হামলাকারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয় ।

সন্দেহভাজন ওই হামলাকারীর বাড়ি থেকে আরো একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ। একটি বিবৃতিতে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, আলামত দেখে মনে হয়না হামলায় আর কেউ জড়িত ছিলেন।

উদ্ধার হওয়া মরদেহের মধ্যে একজন এই হামলার মূল হোতা। তবে সন্দেহভাজন হামলাকারী কিভাবে মারা গেলেন সেই বিষয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে কিছু বলা হয়নি।

প্রসঙ্গত, বুধবার স্থানীয় সময় রাত ১০টার দিকে পরপর দুই জায়গায় এই হামলার ঘটনায় আরো পাঁচজন আহত হলেও পরে আহতদের মধ্যে একজন মারা যান, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

জার্মানির পশ্চিমাঞ্চলীয় পুলিশের বরাতে বৃহস্পতিবার ডয়েচে ভেলে জানিয়েছে, হানউয়ের সন্দেহভাজন গুলিবর্ষণকারীকে তার নিজ ঠিকানায় মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে, সেখানে তার মৃতদেহের পাশাপাশি আরেকটি মৃতদেহও পাওয়া গেছে।

বিবিসি জানিয়েছে, হামলাকারীর সঙ্গে আর কোনো সহযোগী ছিল না বলেই মনে করছে পুলিশ। তদন্ত চলার কথা জানিয়েছে তারা। হামলার উদ্দেশ্য পরিষ্কার নয়।

জার্মানির বিল্ড সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সন্দেহভাজন একজন জার্মান নাগরিক, তার আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স ছিল; তার গাড়িতে গুলি ও আগ্নেয়াস্ত্রের কয়েকটি ম্যাগাজিন পাওয়া গেছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রথম গুলির ঘটনাটি শহরটির কেন্দ্রস্থলের একটি বারে ঘটেছে আর দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটেছে হানাউয়ের ক্যাসুস্টাট এলাকার অপর একটি বারে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য