ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ করেছেন এক দল মানুষ। যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিকোতে প্রায় অর্ধশত মানুষ এই বিক্ষোভ করে।

বিক্ষোভের সময় তারা স্লোগান দিতে থাকে। জাকারবার্গকে উদ্দেশ্য করে তারা বলেন- মিথ্যায় ভরা রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন ফেসবুকে বন্ধ করুন। তাদের সবার হাতেই রঙিন প্ল্যাকার্ড ছিলো। যেখানে লিখা ছিলো- ‘ফেসবুক গণতন্ত্রকে ভেঙে দিচ্ছে’, ‘জাকারবার্গ জেগে ওঠো’ ইত্যাদি।

প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এভাবে বিক্ষোভ করেন তারা। আর এ ঘটনার মধ্য দিয়ে তারা বোঝাতে চাইলেন ফেসবুকের বিরুদ্ধে সমালোচনা বাড়ছে।

কিছু প্রতিবাদকারীরা ফেসবুক থেকে ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপ ভেঙে দেওয়ার এবং জাকারবার্গের পদত্যাগের আহ্বান জানান।

এক প্রতিবাদকারী জানিয়েছেন যে, সান ফ্রান্সিসকো জেনারেল হাসপাতাল থেকে যেন জাকারবার্গের নাম মুছে ফেলা হয়। আরেকজন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে জাকারবার্গের বৈঠকের জন্য ফেসবুকের সমালোচনা করেছেন।

২০২০ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন প্রচারের জেরে আগে থেকেই সমালোচনা হচ্ছিল। আইনপ্রণেতা থেকে শুরু করে চলচ্চিত্রাঙ্গনের অনেকেই সমালোচনা করেছেন ফেসবুকের।

বিক্ষোভকারীদের দাবি, ফেসবুকে নির্দিষ্ট গোষ্ঠী টার্গেট করে দেওয়া রাজনীতিবিদদের বিজ্ঞাপনের বন্ধ করে দেওয়া হোক। এদিকে ফেসবুক তাদের রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন নীতিতে পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য