দিনাজপুর সংবাদাতাঃ কাহারোলে অপহরণের ১৪ দিন পর মামলার ভিকটিমকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধার হওয়া ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে আদালতের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে।

অপহরন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোঃ আমির হোসেন জানান, মামলার আটককৃত আসামীদের তথ্যমতে ও প্রযুক্তির সহায়তায় গত ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২০ রাতে দিনাজপুর জেলার কতোয়ালী থানার রামডুবি সুন্দরবন গ্রামের বেলবাড়ী স্থানে আসামী নাজমুল ইসলামের পরিত্যাক্তা বাড়ি হতে ভিকটিম সুফিয়া বেগম (২০) কে উদ্ধার করে কাহারোল থানায় নিয়ে আসে।

আজ ভিকটিমকে ১২ ফেব্রুয়ারী ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করার পর আদালতের জিম্মায় দেওয়া হয়। মামলার সূত্রে জানা যায়, দিনাজপুর জেলার কাহারোল উপজেলার মুকুন্দপুর ইউনিয়নের পানিশাইল গ্রামের শফিকুর রহমান এর কন্যা (২০) কে অপহরণ করায় কন্যার পিতা বাদী হয়ে ২ জনকে আসামী করে কাহারোল থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ ২জন অপহরণকারীকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

অপরহণ মামলার ভিকটিমকে উদ্ধারের বিষয়ে কাহারোল থানার অফিসার ইনচার্জ মনোজ কুমার রায় জানান, উপজেলার মুকুন্দপুর ইউনিয়নের পানিশাইল গ্রামের শফিকুল ইসলামের কন্যা সুফিয়া বেগমকে গত ২৯জানুয়ারী’২০২০ সন্ধ্যা আনুমানিক সাড়ে ৭টার সময় দিনাজপুর কোতয়ালী থানা শাহাদাত আলীর ছেলে নাজমুল ইসলাম(৩৫) ও একই থানার উত্তর শিবপুর আশ্রায়ন গ্রামের মৃত বুলু মোহাম্মদ এর মোঃ সাইফুল ইসলাম(২৫) এই ২জন মিলে শফিকুর রহমানের কন্যাকে অপহরণ করে নিয়ে যায় এবং শফিকুর রহমান বাদী হয়ে কাহারোল থানায় ২জনের বিরুদ্ধে ৮ ফেব্রুয়ারী’২০২০ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ৭/৩০ ধারা মোতাবেক একটি মামমলা দায়ের করলে পুলিশ অপহরণ মামলার ভিকটিমকে ব্যাপক পুলিশি তৎপরতা ও প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে উদ্ধার করেন এবং এই মামলার আটককৃত ২ জন আসামীই জেল হাজতে রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য