indexসৈয়দ শিমুল, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার ধানজুড়ি মিশন হাসপাতাল থেকে দেড় কিলোমিটার দুরে পূর্ব দিকে গহীন জঙ্গল থেকে পুলিশ স্বামী পরিত্যাক্তা একজন যুবতীর লাশ উদ্ধার করে। তবে পুলিশ ধারনা করেছে প্রেমের কারণে দুবৃত্তরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপুর-জুপরি আঘাত করে নির্মম ভাবে হত্যা করেছে। জঙ্গলে লাশ দেখতে পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলী ও এলাকাবাসি থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে। থানা সুত্র জানায়, উপজেলার খানপুর ইউনিয়নে ধানজুড়ি মিশন হাসপাতাল থেকে দেড় কিলোমিটার দুরে পীরদহের মাজারের পাশে দুবৃত্তরা যুবতির ওড়না মুখে গুঁজে দিয়ে তাকে আক্রোশমুলক ও পরিকল্পিতভাবে তার মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। থানার অফিসার ইনচার্জ কর্মকর্তা মমিনুল ইসলাম ও এসআই বজলুর রশিদ জানান, নিহতের গায়ের রং উজ্জ্বল শ্যামা, পরনে ছিলো সাদা কালো রংয়ের প্রিন্টের জামা ও লাল রংয়ের স্যালোয়ার। সে ফুলবাড়ি উপজেলার সুজাপুর গ্রামের মিজানুর রহমান মিজান-এর স্ত্রী আসমানি ২০। এ ব্যাপারে পুলিশ বাদি হয়ে বিরামপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে লাশ পোসমর্টামের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। মামলা নং-১৬, তারিখ,৩১ জানুয়ারী ২০১৪ইং

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য