দিনাজপুর সংবাদাতাঃ পার্বতীপুরে হিল্লা বিবাহতে রাজী না হওয়ায় স্বামী ও পরিবারের লোকজনের উপর হামলা, দোকান ভাংচুর ও লুঠপাট এবং গুরুতর আহতের ঘটনা ঘটেছে। জানা যায়, গতকাল রাত সাড়ে ৮টার সময় উপজেলার মন্মথপুর ইউনিয়নের কালীরডাঙ্গা মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনায় স্বামীর ভাই মিজানুর রহমান (৪৮), মোস্তাকিম (৪৫), আরমিনা (২৮) আহত হয়। আহত মিজানুর রহমানকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে ও মোস্তাকিমকে সৈয়দপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে এবং আরমিনাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

স্বামী মোয়াজ্জেম হোসেন পিতা- আকরাম হোসেন, তাজনগর সাতবাড়ী বাদী হয়ে গত ২৫-০১-২০২০ইং তারিখে হিল্লা বিবাহ এবং ভয়ভীতির জীবন নাশের হুমকী এবং ১লক্ষ টাকা চাঁদা চাওয়ার অভিযোগে দিনাজপুর বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালতে গত ২৮/০১/২০২০ ইং তারিখে ৯ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। মামলাটি পার্বতীপুর মডেল থানায় আদালত প্রেরণ করলে গত ০২/০২/২০২০ইং পার্বতীপুর মডেল থানায় মামলা হয় (মামলা নং-০৩)।

এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে পরিদর্শন গেলেই সংঘবদ্ধ ঐ চক্রটি বাদী মোয়াজ্জেম হোসেনের দোকান লুটপাট ও ভাংচুরের ঘটনাটি ঘটায়। বর্তমানে বাদী ও স্বাক্ষী নিরাপত্তা ভুগছে। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার দ্রুত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চান। অন্যপক্ষের তথ্য জানা জায়নি তবে জহুরুল হক আহত হয়েছে বলে গ্রামবাসী জানান।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই বিধান জানান, মারপিঠ, লুটপাট, ভাংচুর, আহত’র ঘটনাটি সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনার পর পরই পুলিশ ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছিল। এ ঘটনায় মামলা হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মামলার বাদী মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, আহতরা সুস্থ হলেই এ ঘটনার মামলা করা হবে। আদালতে দায়ের করা মামলা দূর্বল করার সামিল এ ঘটনাটি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য