মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প কংগ্রেসের অভিশংসন শুনানিতে তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেওয়া দুই মার্কিন কর্মকর্তাকে তাদের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছেন।

রিপাবলিকান সংখ্যাগরিষ্ঠ সিনেটে নিজের পক্ষে রায় পাওয়ার স্বল্প সময়ের মধ্যেই তিনি এ পদক্ষেপ নিলেন।

ইউরোপীয় ইউনিয়নে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত গর্ডন সন্ডল্যান্ড ও হোয়াইট হাউসের ইউক্রেইন বিষয়ক অন্যতম শীর্ষ বিশেষজ্ঞ লেফটেনেন্ট কর্নেল আলেক্সান্ডার ভিন্ডম্যান শুক্রবার নিজেদের চাকরিচ্যুতির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বলেও বিবিসি জানিয়েছে।

সন্ডল্যান্ড বলেছেন, প্রেসিডেন্ট তাকে প্রত্যাহারের ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন এবং তা শিগগিরই কার্যকর হবে বলে জানতে পেরেছেন তিনি।

তার এ বক্তব্যের কয়েক ঘণ্টা পরই ভিন্ডম্যানকে হোয়াইট হাউস থেকে বের করে দেওয়া হয়।

আলেক্সান্ডার ভিন্ডম্যানের জমজ ভাই ইয়েভগেনি ভিন্ডম্যান জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন; শুক্রবার তাকেও সামরিক বিভাগে ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে মার্কিন গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

সিনেটে খালাস পাওয়ার পর বুধবার ট্রাম্প তার প্রশাসনে রদবদলের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

হোয়াইট হাউসের বেশ কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, আলেক্সান্ডার ভিন্ডম্যান কয়েক সপ্তাহ ধরেই প্রতিরক্ষা বিভাগে বদলির প্রত্যাশা করছিলেন।

শুক্রবার মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মার্ক এসপার সাংবাদিকদের বলেছেন, অন্যান্য কাজে নিয়োজিত প্রতিরক্ষা বিভাগের সদস্যদের স্বাগত জানাতে তার বিভাগ প্রস্তুত।

নভেম্বরে কংগ্রেসে দেওয়া সাক্ষ্যে সন্ডল্যান্ড বলেছিলেন, ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভ্লদিমির জেলেনস্কির হোয়াইট হাউস সফরে জন্য ট্রাম্প সাবেক মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তার ছেলের দুর্নীতি তদন্ত শুরুর শর্ত দিয়েছিলেন।

বাইডেন চলতি বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী। জেলেনস্কিকে দেওয়া এ শর্তে ট্রাম্প রাজনৈতিকভাবে লাভবান হওয়ার লক্ষ্যে ক্ষমতার অপব্যবহার করেছিলেন বলে অভিযোগ বিরোধীদের।

ট্রাম্প তার বিরুদ্ধে আনা এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

কংগ্রেসের শুনানিতে দেওয়া সাক্ষ্যে আলেক্সান্ডার ভিন্ডম্যান জানান, গত বছরের ২৫ জুলাই মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে জেলেনস্কির ‘অন্যায্য’ ফোনালাপের কথা শুনে তিনিও ‘উদ্বিগ্ন’ হয়েছিলেন।

দুই প্রেসিডেন্টের ওই ফোনালাপের সূত্রেই ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্ত শুরু হয়। ডেমোক্রেটদের দাবি, রাজনৈতিক সুবিধা অর্জনে ট্রাম্প ইউক্রেইনে মার্কিন সামরিক সহায়তা নিয়ে দরকষাকষির করেছিলেন।

গত বছরের মাঝামাঝি ওই সামরিক সহায়তা স্থগিত করা হলেও কয়েক মাস পরে তা ছাড় করে হোয়াইট হাউস।

দুই কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুতির এ খবরের তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে ডেমোক্রেটরা। প্রতিনিধি পরিষদের পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটির ডেমোক্র্যাট চেয়ারম্যান এলিয়ট এঞ্জেল এ ঘটনাকে ‘লজ্জাজনক’ অ্যাখ্যা দিয়েছেন।

তবে রিপাবলিকান শিবিরে ছিল উল্টো সুর।

“সে (আলেক্সান্ডার ভিন্ডম্যান) গোপনীয়তা লংঘনকারী, মোটেও কোনো হুইসেলব্লোয়ার নয়। যুক্তরাষ্ট্রের কমান্ডার ইন চিফ (প্রেসিডেন্ট) একজন সামান্য লেফটেনেন্ট কর্নেলের কাছ থেকে নির্দেশ নিতে পারেন না,” বলেছেন রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা থমাস মেসি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য