ইসরাইলকে লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর সময় ভুলে নিজেদের বিমানেই হামলা চালিয়েছে সিরিয়া। হামলার সময় ১৭২ জন যাত্রী নিয়ে অল্পের জন্য রক্ষা পায় সিরিয়ান এয়ারলাইন্স চাম উইংসের বিমানটি। পরে সেটি সিরিয়ার উত্তর- পশ্চিমাঞ্চলে লাটাকিয়ার কাছে অবস্থিত একটি রাশিয়ান বিমান ঘাঁটিতে জরুরি অবতরণ করে। বৃহস্পতিবার এই ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট।

রাশিয়া প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বৃহস্পতিবার ইরানের নাজাফ থেকে দামাস্কাসের উদ্দ্যেশে আসার সময় চাম উইংস এয়ারলাইন্সের একটি যাত্রীবাহী বিমান সিরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কবলে পড়ে । এর আগে ওই দিনই সিরিয়ায় কমপক্ষে আটটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইসরাইল।এর প্রতিশোধ নিতেই সিরিয়াও পালটা হামলা চালায়। আর এর মধ্যেই পড়ে যায় চাম উইংসের বিমানটি।এদিকে এই হামলার বিষয়ে ইসরাইলের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি।

এই বিষয়ে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইগোর কোনাশেঙ্কভ বলেন, ইসরায়েলির এমন কর্মকাণ্ড শতাধিক যাত্রীদের জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছিল।

এর আগে গত ৮ জানুয়ারি খামিনি বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের সঙ্গে সঙ্গে ইরানের ক্ষেপনাস্ত্র হামলায় বিধ্বস্ত হয় ইউক্রেনগামী পিএস৭৫২ বিমান। এতে বিমানের ১৭৬ যাত্রী ও ক্রুর সবাই প্রাণ হারান। তাদের মধ্যে ইরানের ৮২, কানাডার ৬৩, ইউক্রেনের ১১, সুইডেনের ১০, চারজন আফগানিস্তান, তিনজন জার্মানি এবং অপর তিনজন ব্রিটিশ নাগরিক ছিলেন। ইরাকের দুটি মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের হামলার কিছুক্ষণের মধ্যেই এই ঘটনা ঘটে। তখন ইরান দাবি করে, ভুলের করেই ইউক্রেনের ওই বিমানটিতে তারা ক্ষেপনাস্ত্র হামলা চালায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য