দিনাজপুর সংবাদাতাঃ হিলি স্থলবন্দরে যাত্রীদের করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করা হলেও পণ্যবাহী ভারতীয় ট্রাকের চালক ও হেলপারদের কোনও চেকআপ করা হচ্ছে না। ভারতেও এই ভাইরাস আক্রান্তের খবরের পর থেকে তাদের মাধ্যমে দেশে আসার আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেকে।

তবে, প্রয়োজন হলে তাদেরও চেকআপের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নাজমুস সাঈদ।

হিলি স্থলবন্দর দেখা গেছে, হাকিমপুর উপজেলার হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে গড়ে প্রতিদিন ৫০০-৬০০ যাত্রী যাতায়াত করেন। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ইমিগ্রেশন চেকপোস্টে একটি মেডিক্যাল টিম কাজ করছে।

এছাড়া সচেতনতামূলক পরামর্শও দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু এই হিলি স্থলবন্দর দিয়ে গড়ে প্রতিদিন ২৫০-৩০০ ট্রাক দেশে প্রবেশ করছে। যাতে চালক ও সহকারী মিলিয়ে ৫০০-৬০০ মানুষ দেশে প্রবেশ করে আবার ভারতে ফিরে যায়। তাদের চেকআপের কোনও ব্যবস্থা নেই।

এদিকে, ভারতীয় ট্রাক চালকরা বলেন, ট্রাক নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের পরও স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা নেই। এমনকি ভারতেও কোন চেকআপের ব্যবস্থা নেই।

হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নাজমুস সাঈদ জানান, সরকার ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের নির্দেশনায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে চেকপোস্টে মেডিক্যাল টিম কাজ করছে।

যাত্রী পবেশের সময়সীমা পর্যন্ত মেডিকেল টিম কাজ করে। এই স্থলবন্দর দিয়ে বিশেষ করে চীন থেকে পাসপোর্টযাত্রীদের আসার সম্ভাবনা থাকায় তাদের চেকআপ করা হয়।

ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাকের চালক ও সহকারীরা পরীক্ষা-নিরীক্ষার বাইরে রয়েছেন। তবে প্রয়োজন হলে ভারতীয় এইসব ট্রাকচালক ও সহকারীদের এই কার্যক্রমের আওতায় আনা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য