প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ইতিমধ্যে ২৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। দেশগুলোতে বর্তমানে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ইতিমধ্যে চীনের বাইরে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

চীনে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে ৩০৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেইসঙ্গে দেশটিতে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ হাজারের বেশি।

করোনা ভাইরাসে ইতিমধ্যে হংকংয়ে ১৩ জন, ম্যাকাওয়ে ৭ জন, থাইল্যনান্ডে ১৯ জন, অস্ট্রেলিয়ায় ১২ জন, মালয়েশিয়ায় ৮ জন, সিঙ্গাপুরে ১৩ জন, ফ্রান্সে ৬ জন, জাপানে ২০ জন, দক্ষিণ কোরিয়ায় ১৫ জন, তাইওয়ানে ১০ জন, যুক্তরাষ্ট্রে ৮ জন, ভিয়েতনামে ৭ জন, জার্মানিতে ৮ জন, শ্রীলঙ্কায় ১ জন, কম্বোডিয়ায় ১ জন, নেপালে ১ জন, কানাডায় ৪ জন, আরব আমিরাতে ৪ জন, ফিনল্যান্ডে ১ জন, ফিলিপাইনে ২ জন (একজন ইতিমধ্যে মারা গেছেন), ভারতে ১ জন, ইতালিতে ২ জন, যুক্তরাজ্যে ২ জন, রাশিয়ায় ২ জন, সুইডেনে ১ জন, স্পেনে ১ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

এসব দেশে এখন প্রতিনিয়ত এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।

করোনাভাইরাসের দ্রুত বিস্তার নিয়ন্ত্রণে বিশ্বের কয়েকটি দেশ চীন থেকে আগতদের ঠেকাতে সীমানা বন্ধ করে দিয়েছে। সেইসঙ্গে ইতিমধ্যে চীনে ফ্লাইট বন্ধ করে দিয়েছে বিভিন্ন দেশ। এতে কার্যত পুরো বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে চীন।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে প্রথম করোনা ভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে। প্রতিনিয়ত এই ভাইরাসে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের শরীরে প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে শ্বাসকষ্ট, জ্বর, সর্দি, কাশির মত সমস্যা দেখা দেয়। বিবিসি, সিএনএন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য