বাংলাদেশের হিলি চেকপোস্ট ব্যবহার করে চীনের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া এক বাংলাদেশি ছাত্র দেশে ফিরেছেন। তিনি ভারত হয়ে দিনাজপুরের হিলি চেকপোস্ট দিয়ে বাড়ি ফেরেন।

হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের অফিসার ইনচার্জ মো. রফিকুজ্জামান জানান, ওই ছাত্র চীন থেকে প্রথমে ভারতে আসেন। এরপর হিলি চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফিরেন। তিনি সেখানকার চেঙ্গগঞ্জ জেলার ইয়ননান ইউনিভার্সিটিতে পড়ালেখা করতেন। চীনে করোনা ভাইরাস ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়ায় তিনি নিজেকে নিরাপদে রাখতে দেশে ফেরেন।

এদিকে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নাজমুছ সাঈদ জানান, দায়িত্বরত মেডিকেল টিম থার্মোমিটার দিয়ে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেছেন। তিনি সুস্থ আছেন। তারপরেও বাড়িতে তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। সঙ্গত কারণে ওই ছাত্রের পরিচয় গোপন রাখা হয়েছে।

ভারত থেকে দেশে আসা কয়েকজন পাসপোর্টযাত্রী জানান, চীনের পাশে ভারত ছাড়াও নেপাল ও ভুটান রয়েছে। অনেক বাংলাদেশি হিলি চেকপোস্ট ব্যবহার করে ভারত হয়ে নেপাল ও ভুটানে ঘুরতে যাচ্ছে। আসন্ন বিপদ এড়াতে এই চেকপোস্টে থার্মোমিটার নয়; থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে যাত্রীদের স্ক্রিনিং করতে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে।

জানা গেছে, চীনে এই পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছে কয়েক হাজার মানুষ। প্রাণহানি ঘটেছে দুই শতাধিক।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য