ভারতে প্রথমবারের মতো একজনের শরীরে প্রাণঘাতী নভেল কোরানাভাইরাস ধরা পড়েছে বলে দেশটির সরকার জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে দেওয়া এক বিবৃতিতে ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “কেরালায় উহান বিশ্ববিদ্যালয়ে এক শিক্ষার্থীর শরীরে নভেল করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।”

ভাইরাসটির বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কার মধ্যেই ভারতে একজনের শরীরে ভাইরাসটি ধরা পড়ার এ খবর এলো।

ওই রোগীকে হাসপাতালে পৃথক অবস্থায় রাখা হয়েছে বলে প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর পাঠানো ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, “রোগীর অবস্থা স্থিতিশীল আছে এবং তাকে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।”

ভাইরাসটির সংস্পর্শে এসেছিল বলে ধারণা করা ৪০০ জনেরও বেশি লোককে কেরালায় তাদের বাড়িতে নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে। দিল্লি ও মুম্বাইসহ দেশটির বিভিন্ন শহরের হাসপাতালে সংক্রমণের সম্ভাব্য ঘটনাগুলোর ক্ষেত্রে রোগীদের বিচ্ছিন্ন ওয়ার্ডে রেখে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

কেরালার এর্নাকুলাম জেলায় তিনজন পর্যবেক্ষণাধীন ও ত্রিশূর, তিরুঅনন্তপুরম, মল্লপুরমের একজন করে চিকিৎসকদের সন্দেহের তালিকায় আছেন বলে আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে।

১ জানুয়ারি থেকে চীনে ভ্রমণের ইতিহাস থাকা লোকজনকে জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টের মতো কোনো লক্ষণের অভিজ্ঞতা হলে নিকটবর্তী স্বাস্থকেন্দ্রে জানানোর আহ্বান জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

ভারতের বিভিন্ন বিমানবন্দরে এ পর্যন্ত প্রায় ৩০ হাজার যাত্রীকে পরীক্ষা করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

গত বছরের শেষ দিনে এই ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর এখন পর্যন্ত চীনে ১৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে ও আক্রান্ত হয়েছে ৭ হাজার ৭৭১ জন।

আর চীনের মূল ভূখণ্ডের বাইরে আরও ১৯ জায়গায় অন্তত ৯১ জনের দেহে নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তবে চীনের বাইরে এ ভাইরাসে কারও মৃত্যুর তথ্য এখন পর্যন্ত আসেনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য