আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা জনস্বাস্থ্য উপ-সহকারী প্রকৌশল অফিসে হঠাৎ পরিদর্শনে আসেন নির্বাহী প্রকৌশলী মাইন উদ্দিন। রোববার সকাল ৯ টা ১৫ মিনিটে ওই অফিসে এসে দেখেন ৮ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর মধ্যে ৭ জনেই অনুপস্থিত।

জানা গেছে, লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা জনস্বাস্থ্য উপ-সহকারী প্রকৌশল অফিসে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি নিয়ে কয়েক দিন ধরে বিভিন্ন গণ্য মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়ে আসছে। প্রকাশিত সংবাদের আলোকে তদন্ত করতে রোববার সকালে হাতীবান্ধা অফিসে হঠাৎ পরিদর্শনে আসেন জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মাইন উদ্দিন। তিনি সকাল ৯.১৫ মিনিটে অফিসে এসে দেখতে পান পিয়ন অনিল চন্দ্র কেবল অফিস খুলছেন। সকাল ৯.৪৫ মিনিট পর্যন্ত অফিসে অবস্থান করলেও ৮ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর মধ্যে কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী অফিসে আসেনি। তিনি যখন চলে যাবেন ঠিক তখন আজমিরা রহমান ও কদম আলী নামে দুই জন কর্মচারী অফিসে আসনে।

লালমনিরহাট জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মাইন উদ্দিন বলেন, হাতীবান্ধা অফিসে নানা সমস্যা রয়েছে। ইতোমধ্যে ওই অফিসের প্রধান উপ-সহকারী প্রকৌশলী প্রকাশ কান্তি’র বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বাকিদের বিরুদ্ধে তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য