ময়নাতদন্তের জন্য দাফনের ছয়দিন পর গাইবান্ধায় শনিবার পুকুরে পাওয়া দুই শিশুর মরদেহ কবর থেকে তুলেছে পুলিশ।

গতকাল বিকেলে সাদুল্যাপুর উপজেলার আলদাদপুর গ্রামে পারিবারিক কবরস্থান থেকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এসএম ফয়েজ উদ্দিনের উপস্থিতিতে এ মরদেহ তোলা হয়।

নিহত দুই শিশু হচ্ছে, সাদুল্যাপুর উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের আলদাদপুর গ্রামের নুরুন্নবী মিয়ার মেয়ে মিম আক্তার (৫) ও একই গ্রামের শিপন মিয়ার ছেলে জিহাদ মিয়া (৭)।

গত শনিবার সন্ধ্যায় নিখোঁজ এই দুই শিশুর লাশ রাতেই বাড়ির পাশের জঙ্গলের ভিতরের গ্রামের রশিদ মিয়ার পুকুরে পাওয়া যায়। পরদিন দুপুরে তাদের লাশ দাফন করা হয়।

সাদুল্যাপুর থানার ওসি মাসুদ রানা জানান, পরে তাদের মৃত্যু নিয়ে পরিবারের লোকজনের সন্দেহ হয়। তারা জানতে পারেন দুই শিশুকে হত্যা করে লাশ পুকুরে ফেলে রেখেছে। গত মঙ্গলবার রাতে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে নুরুন্নবী মিয়া বাদী হয়ে সাদুল্যাপুর থানায় হত্যা মামলা করেন।

তিনি জানান, মামলার ফলে গতকাল বিকালে ওই দুই শিশুর লাশ কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাবার পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে বলে জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য