পঞ্চগড় সদর উপজেলার মোমিনপাড়া সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে হাসান আলী (২৫) নামে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। তার বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাড়িভাসা ইউনিয়নের খালপাড়া এলাকায়।

মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) ভোরে সীমান্তের ৭৫২ মেইন পিলার এলাকায় হাসানের গুলিবিদ্ধ লাশ দেখতে পান স্থানীয়রা। নিহত ব্যক্তির মরদেহ এখনও সীমান্ত এলাকায় পড়ে রয়েছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাচ্ছে ৫৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

পঞ্চগড় সদর উপজেলার মোমিনপাড়া সীমান্তে গুলিতে নিহত বাংলাদেশি নাগরিক হাসান আলীর (২৫) সঙ্গীদের খুঁজছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতেই তার মৃত্যু হয়েছে কিনা- সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে হাসানের সঙ্গীদের সঙ্গে বিজিবি কর্মকর্তারা কথা বলতে চান। সুরতহাল ও ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানান বিজিবি কর্মকর্তারা।

নিহত হাসান আলী পেশায় গরু ব্যবসায়ী। তার বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাড়িভাসা ইউনিয়নের খালপাড়া গ্রামে। বাবার নাম তবিবর রহমান। স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) মোমিনপাড়া সীমান্তের মেইন পিলার ৭৫২ এলাকায় হাসানের গুলিবিদ্ধ লাশ পড়ে থাকতে দেখেন এলাকাবাসী। পরে বিজিবির উপস্থিতিতে পঞ্চগড় থানা পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। বিএসএফের গুলিতে তিনি নিহত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। খবর পেয়ে নীলফামারী ৫৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. মামুনুল হক ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গভীর রাতে হাসান আলীসহ বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি সীমান্ত অতিক্রম করে গরু আনতে ভারতীয় এলাকায় প্রবেশ করে। এ সময় বেরুবাড়ি বিএসএফ ক্যাম্পের টহলরত সদস্যরা তাদের ওপর এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে। এতে মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসান আলী ঘটনাস্থলে মারা যান। তবে অন্যরা পালিয়ে আসতে সক্ষম হয়।

হাসানের স্ত্রী সাদিয়া জাহান জানান, ‘বিএসএফ আমার স্বামীকে গুলি করে হত্যা করেছে। ফজরের নামাজের আগে বিএসএফ সদস্যরা তার লাশ মেইন পিলার ৭৫২-এর বাংলাদেশি এলাকার অভ্যন্তরে মোমিনপাড়ায় ফেলে রেখে যায়।’
প্রত্যক্ষদর্শী মোমিনপাড়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস জানান, মোমিনপাড়া এলাকায় গুলিবিদ্ধ হাসান আলীর লাশ দেখতে পেয়ে বিজিবি ও পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পরে বিজিবির উপস্থিতিতে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী জানান, ‘যেহেতু গুলিবিদ্ধ লাশটি বাংলাদেশি এলাকায় পাওয়া গেছে, এ কারণে তদন্ত ছাড়া কিছু বলা সম্ভব নয়। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।’

নীলফামারী ৫৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. মামুনুল হক জানান, ‘নিহত হাসান আলীর মাথায় গুলির চিহ্ন রয়েছে। তার সঙ্গীদের ট্রেস করার চেষ্টা চলছে। তাদের কাছে ঘটনা শুনে এবং সুরতহাল রিপোর্ট পেলে এ ঘটনার সঠিক তথ্য জানা যাবে।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য