আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্চিত করে হত্যার হুমকী প্রদান করায় বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যান সালেকুজ্জামানের বিরুদ্ধে থানায় সাধারন ডায়েরী (জিডি) করা হয়েছে।

রবিবার(১৯ জানুয়ারী) দিনগত রাতে আদিতমারী থানায় জিডি করেন উপজেলার দুর্গাপুর এলাকার মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম(৬৭)।

অভিযুক্ত চেয়ারম্যান সালেকুজ্জামান প্রামানিক আদিতমারী উপজেলা বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক ও একই উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার দুর্গাপুর এলাকার মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম(৬৭) ও তার ভাগ্নে বিএনপি কর্মী আসাদের মাঝে পৈত্রিক জমি নিয়ে বিরোধ বাঁধে। মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে বোনের অংশ বসতভিটার পাশে ভাগ্নে আসাদকে বুঝিয়ে দেন। কিন্তু ইউপি চেয়ারম্যান সালেকুজ্জামান প্রামানিক নিজ বসতভিটায় জমি বুঝে দেয়ার জন্য মুক্তিযোদ্ধাকে চাপ প্রয়োগ করেন। এতে মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম রাজি না হওয়ায় চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন।

এরই জের ধরে শুক্রবার(১৭ জানুয়ারী) বিকেলে ইউপি চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা সালেকুজ্জামান প্রামানিক দলবল নিয়ে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে গিয়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে মুক্তিযোদ্ধাকে পরিবারের সদস্যদের সামনে লাঞ্চিত করেন।

তাদের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এলে বিএনপি নেতা চেয়ারম্যান সালেকুজ্জামান প্রামানিক দ্রুত বসতভিটা খালি করে জমি বুঝে দিতে অশ্লীনভাষায় গালমন্দ করেন। নির্দেশ অমান্য করলে মুক্তিযোদ্ধাকে সপরিবারের হত্যা করে জমি দখলের হুমকী দেন। এতে নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে শ্বঙ্কিত হয়ে পড়েন মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম।

এ ঘটনায় নিরাপত্তা চেয়ে বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১২জনের বিরুদ্ধে রোববার রাতে আদিতমারী থানায় সাধারন ডায়েরী দায়ের করেন মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম।

মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম বলেন, পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে বোনের অংশ বসতভিটার এক পাশে বুঝে দেয়া হয়েছে। কিন্তু বিএনপি নেতা তার কর্মীর জন্য আমাকে বসতভিটা হারা করাসহ হত্যার হুমকী দিয়েছে। পাকিস্তানি হানাদারদের পৈশাচিক নির্যাতনকে উপেক্ষা করে জিবন বাঁজি রেখে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধিন করেছি। এখন স্বাধিন দেশে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিশক্তি হত্যার হুমকী দিচ্ছে। তিনি প্রশাসনের ঊর্দ্ধতন মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

উপজেলা বিএনপি সম্পাদক দুর্গাপুর ইউপি চেয়ারম্যান সালেকুজ্জামান প্রামানিকের মোবাইলটি বন্ধ থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, মুক্তিযোদ্ধাকে হুমকী প্রদর্শনের দায়ে থানায় জিডি করা হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য