আবহাওয়ার প্রভাব পড়ে চুলে। তাই ঋতু বুঝে চুলের ঠিকঠাক যত্ন নেওয়া উচিত।

রূপচর্চা-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে ভারতীয় হোমপ্যাথি-বিশেষজ্ঞ ও জরুরি চিকিৎসা বিষয়ে ডিগ্রি প্রাপ্ত ডা. জিৎ গোরের দেওয়া পরামর্শ অবলম্বনে চুলের উপর আভাওয়ার কেমন প্রভাব পড়ে সে সম্পর্কে এখানে জানানো হল।

শীত ও বাতাস: ঠাণ্ডা ও বাতাসের কারণে খোলা চুলে জট বাঁধে। তাছাড়া বাতাস চুল শুষ্ক ও আগা ফাটারও কারণ।

বাতাসের কারণে চুলের আর্দ্রতা বাষ্পীভূত হয়। ফলে চুল শুষ্ক ও কোঁকড়া হয়ে যায়। সাধারণ সময়ের তুলনায় শীতল আবহাওয়া মাথার ত্বককে বেশি শুষ্ক করে ফেলে।

মাথার ত্বক খুব বেশি শুষ্ক হলে তা আর্দ্র রাখার ব্যবস্থা করতে হবে।

তাপ ও রোদ: সরাসরি সূর্যের আলো মাথার চুলের জন্য ক্ষতিকর। অতিবেগুনি রশ্মি চুল রুক্ষ ও ক্ষতি করে।

গ্রীষ্মের রোদ তাপীয় সরঞ্জামের মতোই চুলের জন্য ক্ষতিকর। তাপ মাথার ত্বক তৈলাক্ত এবং চুল রুক্ষ করে ফেলে।

মাথার ত্বক পরিষ্কার করা এবং চুলের আর্দ্রতা রক্ষা করার ব্যবস্থা করতে হবে এই সময়ে।

বর্ষা ও আর্দ্রতা: বাতাসের আর্দ্রতা চুল শুষে নেয় এবং চুলকে অন্যান্য সময়ের তুলনায় বেশি ভারী করে ফেলে।

ফলে চুলের আকারও ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

যাদের চুল পাতলা, তাদের চুল অতিরিক্ত আর্দ্রতা শুষে নিয়ে আকারে মোটা হয় এবং চুলে জট বাঁধে।

বিভিন্ন সময়ে চুলের যত্নের বিষয়ে জানতে নিচের লিংকগুলো ক্লিক করুন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য