অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার জন্য পুরুষের শুক্রাণুর দুর্বলতা দেখা দিতে পারে। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার মাধ্যমে এই সমস্যা সমাধান করা সম্ভব।

স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়, শারীরিক জটিলতার পাশাপাশি কিছু খাবার পুরুষের বন্ধ্যত্বের জন্য দায়ী। এখানে কয়েকটি খাবারের নাম উল্ল্যেখ করা হল যা বাদ দেওয়ার মাধ্যমে পুরুষের শুক্রাণুর মান উন্নত করা সম্ভব।

কার্বোনেইটেড পানীয়: কোমল পানীয় ও ‘স্পোর্টস ড্রিংক্স’ ইত্যাদি পান করা শুক্রাণুর সংখ্যার উপর প্রভাব ফেলে। ‘হিউম্যান রিপ্রোডাকশন’ জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণার ফলাফল থেকে জানা যায়, নিয়মিত কোমল পানীয় পান করা হলে সেটা পুরুষের শুক্রাণুকে দুর্বল করে ফেলে ও সজীবতা নষ্ট হয়।

প্রক্রিয়াজাত মাংস: নিয়মিত খেলে পুরুষের শুক্রাণুর উপর প্রভাব ফেলে। ২০১৪ সালে হার্ভার্ড’য়ের করা এক গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব পুরুষ অতিরিক্ত প্রক্রিয়াজাত মাংস খায় তার শুক্রাণুর গুণগত মান যে পুরুষ খায় না তাদের তুলনায় ২৩ শতাংশ কম।

‘জার্নাল অব এপিডেমিওলজি’তে প্রকাশিত আরেকটি গবেষণা থেকে জানা যায়, পুরুষের শুক্রাণুর মান কমার সঙ্গে প্রক্রিয়াজাত খাবারের সম্পর্ক রয়েছে।

অ্যালকোহল: যত বেশি অ্যালকোহল গ্রহণ করা হয় তত এর কুপ্রভাব শুক্রাণুর উপর পড়ে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, কেউ যদি পরিমিত পরিমাণেও অ্যালকোহল গ্রহণ করেন, সেটার প্রভাবও শুক্রাণুর ওপর পড়ে।

শুক্রাণুর পরিমাণ বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এমন কিছু খাবার

স্বাস্থ্যকর এবং তাজা খাবার শরীর ভালো রাখার পাশাপাশি পুরুষের শুক্রাণুর মান বাড়াতেও সাহায্য করে।

কলা: ভিটামিন ‘সি’, ‘এ’ এবং ‘বি-১’ সমৃদ্ধ হওয়ায় পুরুষের যৌন শক্তি ও হরমোন বাড়াতে সাহায্য করে।

ব্রোকলি: শুক্রাণুর মান বাড়াতে ব্রোকলি বেশ সুপরিচিত। এটা ভিটামিন ‘এ’র ভালো উৎস। গাজর, পালংশাক, মিষ্টিআলু খাওয়াও বেশ উপকারী।

রসুন: পুরুষের উর্বরতা বাড়াতে রসুন জাদুর মতো কাজ করে। রসুনে অ্যালিসিন এবং সেলেনিয়াম থাকে। যা পুরুষের শুক্রাণুর ক্ষয়পূরণের সঙ্গে মান উন্নয়ন করে।

ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার: পুরুষের উর্বরতা বাড়াতে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার বেশ উপকারী। এটা শুক্রাণুর ত্রুটি দূর করে এবং মান ভালো রাখে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য