বর্তমানে ‘নো মেইক আপ লুক’ বেশ জনপ্রিয়। তবে এই ধরনের মেইকআপও ক্ষতির কারণ হতে পারে।

সাধারণ মেইকআপ করার মতো ত্বকের ক্ষতি করে কিনা জানতে চাইলে ভারতীয় ত্বক বিশেষজ্ঞ এবং জোলি স্কিন ক্লিনকের প্রতিষ্ঠাতা ডা. নিরুপমা পারওয়ান্দা ইতিবাচক উত্তর দেন।

প্রতিদিন মানুষের মেইকআপ করতে চাওয়ার পেছনে নানান কারণ আছে। আত্মবিশ্বাস খানিকটা এবং সৌন্দর্য বাড়াতে মেইকআপ ব্যবহার অনেকটা বন্ধুর মতো বলে মনে করেন, পারওয়ান্দা।

মেইকআপে ত্বক দেখতে সুন্দর লাগলেও তা নিয়মিত ব্যবহার করা ঠিক না। ভারী মেইকআপ ব্যবহারে ত্বকের ক্ষতি হয় এটা আমরা সবাই জানি। তবে ‘নো মেইকআপ লুক মেইকআপ’ও যে ত্বকের ক্ষতি করে সেটাও সকলের জানা প্রয়োজন।

এর মূল কারণ হল, ‘নো মেইক-আপ লুক’ নিলে আশপাশের মানুষ মেইকআপের স্তরগুলো দেখতে পারেনা। তারমানে এই নয় যে, মুখে কোনো মেইকআপ করা হয় নি।

একটু মনোযোগ দিয়ে বিউটি টিউটোরিয়ালগুলো দেখলেই বুঝতে পারবেন, কেনো এই ধরনের মাইকআপ লুকের আবির্ভাব হয়েছে। এর মূল কারণ হল, সারাদিন কষ্ট ছাড়াই চেহারায় একটা নিখুঁতভাব ফুটিয়ে তোলা।

মজার বিষয় হল, সারা পৃথিবীতে এর ‘লুক’ জনপ্রিয়তার মূল কারণ চেহারার সৌন্দর্য বাড়ানো, খুঁত ঢাকা নয়। এবং এই ধরনের মেইকআপ সব ধরনের ত্বক ও বর্ণের মানুষের সঙ্গেই মানিয়ে যায়।

মেইকআপ করার পরেও চেহারা দেখে বোঝা যায় না যে, ত্বকেকে নিখুঁত দেখানোর জন্য এতে কি পরিমাণ মেইকআপ ব্যবহার করা হয়েছে।

মেইকআপ শেষ করার পরেও তা দেখতে প্রাকৃতিক লাগে এবং কতটুকু ও কতবার ত্বকে মেইকআপ ব্যবহার করা হয়েছে তা বোঝা যায় না। এত কিছু ত্বকে ব্যবহার করার কারণে, ত্বকে ‘ব্রেইক আউট’, শুষ্কতা, অ্যালার্জি, দাগ এবং বলিরেখা দেখা দিতে পারে যা সাধারণ মেইকআপ করার ফলাফলের চেয়ে ভিন্ন নয় বলে জানান, পারওয়ান্দা।

তবে, নিয়মিত ত্বক পরিচর্যার অভ্যাস গড়ে তুললে ‘নো মেইক আপ লুক’ ত্বকের জন্য ভালো বন্ধু ।

নো মেইক আপ লুক নিতে উন্নত মানের ও কয়েকটি ভালো উপাদান সমৃদ্ধ প্রসাধনী ব্যবহার করলেও তা যে সাধারণ মেইকআপের চেয়ে ত্বকের অর্ধেক ক্ষতি করে এমনটা নয়।

নিয়মিত ব্যবহারের জন্য বর্তমানে মার্কেটে নানান প্রসাধনী পাওয়া যাচ্ছে, এবং এতে ব্যবহৃত উপাদানগুলো ত্বকের ক্ষতি না করেও নিখুঁতভাব ফুটিয়ে তুলতে সাহায্য করে। তাই মেইকআপ হিসেবে এইসকল উপাদান বেছে নিতে পারেন।

উপকারী উপাদান যেমন- টি ট্রি, ভিটামিন সি, রেটিনল ইত্যাদি সমৃদ্ধ প্রসাধনী বেছে নিন। এতে ত্বক মেইকআপ ব্যবহার করার মতো নিখুঁত হয়ে উঠবে বলে জানান, পারওয়ান্দা।

পরামর্শ

ত্বকের জন্য সব সময় একটা ভালো পরিচর্যার রুটিন মেনে চলুন। বাসায় পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গেই ত্বক থেকে মেইকআপ তুলে ফেলুন। ত্বক সবসময় পরিষ্কার, টোনিং এবং ঘুমাতে যাওয়ার আগে ময়েশ্চারাইজ মাখুন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য