আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাটঃ দুই দফা শৈত্যপ্রবাহের পর লালমনিরহাটে আবারও শীত জেকে বসেছে। তীব্র শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। গত কয়েকদিন ধরে দেখা মিলছে না সূর্যের। যার ফলে চরম দূর্ভোগে পড়েছে তিস্তা ও ধরলা তীরবর্তী ছিন্নমূল মানুষরা।

সোমবার (১৩ জানুয়ারী) তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৮ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ অবস্থায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে নিম্ন আয়ের ও ছিন্নমূল মানুষকে। বিভিন্ন স্থানে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে শীতবস্ত্র দেওয়া হলেও তা অপ্রতুল বলে অভিযোগ করেন শীতার্তরা।

এদিকে ঘন কুয়াশার কারণে বাজারগুলোতে তেমন দোকান-পাট খুলতে দেখা যায়নি। লোকজনের চলাচলও স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক কম। তারপরও পেটের টানে কিছু শ্রমিক ঘর থেকে বেরিয়েছে। বিশেষ করে তিস্তা ও ধরলা তীরবর্তী ছিন্নমূল মানুষরা পড়েছে চরম ভোগান্তিতে।

হাড় কাঁপানো শীতে বিপর্যয়ে পড়েছে ছিন্নমূল মানুষের গবাদিপশু। দিন রাত বৃষ্টির মতো শিশির পড়ছে। প্রথম দফার শীতে তিস্তা ও ধরলা পাড়ের লোকজনরা শীতবস্ত্র পেলেও দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফায় কেউ শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন বলে জানিয়েছেন তারা।

কুড়িগ্রাম রাজারহাট আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র রায় জানান, গত কয়েক দিনের চেয়ে উত্তরের জেলা লালমনিরহাটে ঘন কুয়াশার সঙ্গে শীত বাড়বে। তবে সূর্যের দেখা দুপুরে কিছুটা পাওয়া যেতে পারে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য