দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ধর্মীয় নানান আয়োজনের মধ্যদিয়ে দিনাজপুরে শুরু হয়েছে ক্ষুদ্র নৃ-তাত্বিক জনগোষ্ঠি সাঁওতাল আদিবাসী সম্প্রদায়ের ৫দিনব্যাপী “সহরায় পরব“ উৎসব ।

শনিবার সকালে ধর্মীয় নানান আয়োজনের মধ্যদিয়ে দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার গড়মল্লিকপুর আদিবাসী গ্রামের সাঁওতাল মাঞ্জিহীথান মন্দির ও ধর্ম উপাসনালয় প্রাঙ্গনে ৫দিনব্যাপী শুরু হয়েছে “সহরায় পরব“(পৌষ প্রাবণ) উৎসব।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ধর্মীয় ভাবগাম্ভীয্য ও পুজা অর্চনার মধ্যদিয়ে সহরায়ে পরব‘র উদ্ধোধন করেন কাহারোল আদিবাসী সমাজ উন্নয়ন সমিতির সভাপতি নারায়ণ মার্ডি। অনুষ্ঠনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাহারোল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: আব্দুল মালেক সরকার। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মনিরুল ইসলাম,প্রকল্প কর্মকর্তা সামিয়েল মার্ডি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো: শরিফ উদ্দীন আহম্মেদ।

গড়মল্লিকপুর আদিবাসী সাঁওতাল মাঞ্জিহীথান মন্দির ও ধর্ম উপাসনালয়ের মাঞ্জি হারাম রবি টুডু‘র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন,নিজেদের জাতি এবং সম্প্রদায়ের আগামী প্রজন্মকে রক্ষায় মাদককে পরিহার করতে হবে। প্রত্যেককে দায়িত্ব নিয়ে আগামী প্রজন্মের সন্তানদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে সমাজ বদলের চেষ্টা এবং কর্মমুখী সমাজবির্নিমানে নিজেদেরকে এগিয়ে যেতে হবে।

“সহরায় পরব“ হচ্ছে সাঁওতাল সম্প্রদায়ের ১২ গোত্রের মধ্যে নতুন বছরকে বরনের উৎসব। তারা প্রত্যেক বছরের পৌষ পার্বনের শুরুতেই ধর্মীয় কৃষ্টিকালচারের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে দেব-দেবীর নিকট নিজেদের মধ্যে সুখ শান্তি সমৃদ্ধি এবং কল্যান কামনায় ৫দিনব্যাপী পুজা অর্চনাসহ অন্যান্য কর্মকান্ড পালন করেন।

কিসকু, র্মূমূ, টুডু, হেমরম, সরেন, বেসড়া, হাঁসদা, মার্ডি, বাস্কে, চড়ে, পাউরিয়া এবং বেদেয়া গোত্রের সাঁওতাল সম্প্রদায়ের এই উৎসবে পরিবারসহ আত্বীয়-স্বজনেরা আনন্দ ঘন ৫দিনব্যাপী এই উৎসবের নানান আয়োজনে স্থানীয়সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল হতে আগত বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষ এবং ছেলেমেয়েরা অংশ নিয়ে আনন্দ উপভোগ করবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য