আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের বুড়িমারী সীমান্তে আবু সাঈদ (২৬) নামে এক বাংলাদেশিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) বিরুদ্ধে।

শনিবার (১১ জানুয়ারী) সকালে পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী বামনদল সীমান্তের ৮৩৬ ও ৮৩৭ নম্বর মেইন পিলার এলাকা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে গেছে ভারতীয় মেখলিগঞ্জ থানা পুলিশ। আবু সাঈদ পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের বামনদল এলাকার বেনজির রহমানের ছেলে বলে জানাগেছে।

সীমান্তবাসী, বিজিবি ও নিহতের পরিবার জানায়, ওই সীমান্তের ভারতের অভ্যন্তরে তামাক ক্ষেতে কাজ করছিলেন আবু সাঈদ। শুক্রবার (১০ জানুয়ারী) সন্ধ্যায় চোরাকারবারী সন্দেহে বিএসএফ তাকে মারধর করে বিদ্যুতের পিলারের কাছে ফেলে রেখে চলে যায়। এতে তার মৃত্যু হলে শনিবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে ভারতীয় মেখলিগঞ্জ থানা পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

নিহত আবু সাঈদের বাবা বেনজির রহমান অভিযোগ করে বলেন, সীমান্তের তামাক ক্ষেত থেকে তাকে ধরে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে মরদেহ আবার তামাক ক্ষেতে ফেলে রেখে যায়। আমার ছেলে আবু সাঈদের মরদেহ ফেরত আনার জন্য বিজিবির কাছে সহযোগিতা চেয়েছি।

বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবু সাইদ নেওয়াজ নিশাত বলেন, বিএসএফের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। তারা হত্যার বিষয়টি অস্বীকার করেছে। পতাকা বৈঠক করে নিহত আবু সাঈদের মরদেহ ফেরত আনা হবে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) রংপুর ৬১ ব্যাটালিয়নের বুড়িমারী কোম্পানি কমান্ডার আবুল হোসেন বলেন, নিহতের মরদেহ এলে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় পতাকা বৈঠকের জন্য বিএসএফকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য