ইরাকের প্রভাবশালী ধর্মীয় আলেম ও মিলিশিয়া নেতা মুক্তাদা আস-সাদর বলেছেন, মার্কিন সেনারা যদি ইরাকে থাকার চেষ্টা করে তাহলে এ দেশের মাটি হবে তাদের জন্য নতুন ভিয়েতনাম। ইরাকি সংসদের সবচেয়ে বড় জোটের এই নেতা জাতীয় সংসদকে সোমবার লেখা এক চিঠিতে এই হুঁশিয়ারি দেন। খবর প্রেস টিভি’র

চিঠিতে মুক্তাদা সাদর বলেন, ‘মার্কিন সেনা বহিষ্কারের ব্যাপারে জাতীয় সংসদে শুধু একটি প্রস্তাব পাস করাই যথেষ্ট নয়। আমি মনে করি, ইরাকের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন এবং আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির ব্যাপারে আমেরিকা যে পদক্ষেপ নিয়েছে তার তুলনায় এটি দুর্বল পদক্ষেপ।’

তিনি আরও বলেন, আমেরিকার সঙ্গে যে নিরাপত্তা চুক্তি রয়েছে তা দ্রুত বাতিল করতে হবে, ইরাকে মার্কিন দূতাবাস বন্ধ করে দিতে হবে, ইরাক থেকে মার্কিন সেনা অপমানজনকভাবে বিদায় করতে হবে এবং মার্কিন সরকারের সঙ্গে যোগাযোগকে অপরাধ হিসেবে চিহ্নিত করতে হবে।

গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের বাগদাদের একটি আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে মার্কিন বিমান হামলায় ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান কাসেম সুলাইমানি ও ইরাকের শীর্ষ মিলিশিয়া নেতা মাহদি আল-মুহান্দিসসহ অন্তত ১০ জন নিহত হন। মার্কিন এই হামলার প্রতিবাদে গত রবিবার (৫ জানুয়ারি) ইরাকের সংসদে মার্কিন সেনাদের বহিষ্কারে একটি প্রস্তাব পাশ হয়। ওই প্রস্তাবে বলা হয়, ইরাকে মার্কিন কিংবা কোনো বিদেশি সেনা থাকতে পারবেন না।

এদিকে ইরাক থেকে সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে এক মার্কিন সামরিক চিঠি নিয়ে ধন্দ তৈরি হয়েছে। চিঠিতে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে ইরাক থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার উল্লেখ থাকলেও যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ পর্যায় থেকে চিঠির বিষয়ে অস্বীকৃতি জানানো হয়েছে। মার্কিন সেনারা ইরাক ছেড়ে যাচ্ছেন না বলেও নিশ্চিত করেছেন তারা। বর্তমানে ইরাকে অন্তত ৫ হাজার মার্কিন সেনা অবস্থান করছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য