কুড়িগ্রামে এক বাজারের নৈশপ্রহরীকে হত্যা করে তিনটি দোকানে লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার সকালে চিলমারী উপজেলার জোড়গাছ বাজারের ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

এর আগের রাতের কোন এক সময় ওই বাজারে ডাকাতির সময় নিহত নৈশপ্রহরী এরশাদুল হক (৫৫) প্রায় ১০ বছর ধরে সেখানে পাহারার দায়িত্বে ছিলেন বলে জানিয়েছেন ব্যবস্য়ীরা।

‘এখনো প্রাথমিক তদন্ত কার্যক্রম চলছে’ উল্লেখ করে চিলমারী থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, “পুলিশ ক্লু খুঁজছে, এখন পর্যন্ত ব্যবসায়ী ফারুক মিয়ার দোকানে এক পাটি জুতো পাওয়া গেছে। “

জোড়গাছ বাজার কমিটির সেক্রেটারি মিজানুর রহমান মুকুল জানান, রোববার জোড়গাছ বাজারে হাট বসায় প্রচুর লেনদেন হয়েছে।

“দুর্বৃত্তরা পরিকল্পনা করে রাতের কোনো এক সময়ে বাজারের এক চায়ের দোকানের সামনে বাঁশের মধ্যে দু-হাতপা বেঁধে মুখে গামছা গুজে নৈশপ্রহরী এরশাদুলের শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

“এরপর দুর্বৃত্তরা বাজারের ব্যবসায়ী নজির হোসেন ও ফারুক মিয়া ও লিটনের দোকানের সার্টারের তালা ভেঙে ভিতরের মালামাল ও নগদ টাকা লুট করে। “

ডাকাতিতে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী নজির হোসেন জানান, তার দোকানের ভল্ট ভেঙে দুর্বৃত্তরা ‘নগদ ১৫ লাখ টাকা ও তিন থেকে চার লাখ টাকার’ মালামাল নিয়ে গেছে।

“এ সময় তারা সিসি ক্যামেরা ভেঙে নিয়ে যায়।” অপর ব্যবসায়ী ফারুক মিয়া জানান, তার দোকান থেকে ‘নগদ দেড় লাখ টাকাসহ প্রায় তিন লাখ টাকার মালামাল’ লুট হয়েছে।

লাবু বুক স্টোরের মালিক লিটন জানান, তার ভল্ট থেকে সাড়ে ‘নয় হাজার টাকা’ ও মালামাল নিয়ে গেছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেনহাজুল আলম বলেন, “ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজখবর নিয়েছি। এ ঘটনায় তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য