লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলির একটি সামরিক একাডেমিতে বিমান হামলায় অন্তত ২৮ জন নিহত হয়েছে।

শনিবার রাতের এ হামলায় আরও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে ত্রিপোলির কর্মকর্তাদের বরাতে জানিয়েছে বিবিসি।

২০১১ সালে লিবিয়ার দীর্ঘদিনের শাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফি ক্ষমতাচ্যুত ও নিহত হওয়ার পর থেকে দেশটি সহিংসতা কবলিত হয়ে কয়েক অংশে বিভক্ত হয়ে আছে।

লিবিয়ার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত জাতীয় ঐক্য সরকারের (জিএনএ) নিয়ন্ত্রণে আছে ত্রিপোলি। অপরদিকে দেশটির পূর্বাঞ্চল সামরিক কমান্ডার জেনারেল খলিফা হাফতারের অনুগত লিবিয়ান ন্যাশনাল আর্মির (এলএনএ) নিয়ন্ত্রণে আছে।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে ত্রিপোলির আশেপাশে গোলাবর্ষণ ও বিমান হামলা বেড়ে গেছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

শনিবার রাতে আল হাদবা এলাকায় সামরিক শিবিরে ‘বিমান থেকে বোমা বর্ষণ করা হয়েছে’ বলে জিএনএ-র অনুগত বাহিনীগুলো জানিয়েছে। হামলার জন্য এলএনএকে দায়ী করেছে তারা। কিন্তু হামলার সঙ্গে এলএনএ-র জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছেন গোষ্ঠীটির এক মুখপাত্র।

ঘটনাস্থল থেকে সম্প্রচারিত ফুটেজে এলোমেলোভাবে মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

জিএনএ-র স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আমিন আল হাশেমি বলেন, “ত্রিপোলির সামরিক একাডেমিতে বিমান হামলায় ২৮ ক্যাডেট নিহত ও বহু আহত হয়েছে।”

হতাহতের সংখ্যা এখনও বাড়ছে বলে জিএনএ-র স্বাস্থ্যমন্ত্রী হামিদ বিন ওমর টেলিফোনে রয়টার্সকে জানিয়েছেন।

আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকারকে ত্রিপোলি ছাড়া করতে গত বছরের এপ্রিল থেকে রাজধানীতে হামলা শুরু করে বিদ্রোহী জেনারেল হাফতারের এলএনএ বাহিনী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য