সংবাদ সম্মেলনঃ সর্বপরিচিত বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বিশিষ্ট সংগঠক, উপজেলা সদর ইউনিয়নের ৪ বারের জনপ্রিয় ইউপি চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মরহুম সাখায়াতজ্জামান প্রধান বাবু ওরফে বাবু চেয়ারম্যানের বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ছেলে পলাশ ওরফে পলাশ পাগলা ওরফে পলাশ পুলিশের বিরুদ্ধে অহেতুক হয়রানী মূলক উদ্দেশ্য প্রণোদিত অবাস্তব মিথ্যা-বানোয়াট ও ভিত্তিহীন নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা দায়েরের বিরুদ্ধে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম বাবু চেয়ারম্যানের বিধবা পত্নী সায়দা বেওয়া এবং উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড পলাশবাড়ী শাখার যৌথ আয়োজনে সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আবেগপ্লুত পলাশ-এর মা অশ্রুসিক্ত নয়নে কান্নাবিজড়িত কন্ঠে পৌরশহরের নুনিয়াগাড়ী গ্রামের মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজার রহমানের মেয়ে শ্যামলীর অতীত বর্তমানের নারীঘটিত নানা কেলেঙ্কারির কথা তুলে ধরেন। গাইবান্ধা জেলা মহিলা লীগের সহঃ সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামলী বেগমের চারিত্রিক দিক তুলে ধরে মামলার আসামী পলাশ-এর মা বলেন এবার আর মা শ্যামলী নন।

শ্যামলী তার স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে জড়িয়ে অসহায় পলাশের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে শহরের সর্বস্তরের সচেতন জনমনে সমালোচনার ঝড় তুলেছে।

বিকেলে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে শ্যামলীর এমন অসাদু অপতৎপরতা এবং পরিকল্পিত চক্রান্ত নস্যাত করতে পুলিশ বিভাগের যথাযথ হস্তক্ষেপ কামনা করে বক্তব্য উপাস্থাপন করেন। পলাশের পরিবারের সদস্যসহ স্বজনরা তাদের বক্তব্যে মামলাটি তদন্ত সাপেক্ষ প্রতিবন্ধী পলাশকে অব্যহতি দানে পুলিশ বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এসময় প্রতিবন্ধী পলাশের বড় ভাই গাইবান্ধা জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক গোলাম সরোয়ার প্রধান বিপ্লব, স্কুল শিক্ষিকা বোন সানজিদা আক্তার শিল্পী, সহোদর ভাই শরিফুজ্জামান পল্লব, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমিটির আহবায়ক ওয়ারেছুর রহমান মন্টু, সামছুজ্জোহা আহমেদ হিটু, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম বাদশা, আলী মোস্তফা রেজা গোলাপ, এনামুল হক মকবুল, নির্মল মিত্র, মহিউজ্জামান খোকন, আব্দুর রশিদ, জাপা নেতা আলমগীর মন্ডল, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সাবিনা আক্তার ঝুনু ও সাধারণ সম্পাদক উম্মেহানি ছাড়াও স্থানীয় অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য