দিনাজপুর সংবাদাতাঃ হিমালয়ের পাদদেশে উত্তরের জেলা দিনাজপুরে সর্বত্র তীব্র শৈত্য প্রবাহ বইছে। প্রচন্ড শীতে জেলার জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে কর্মজীবি ও দিন মুজুর মানুষেরা চরম দূর্ভোগ পরেছে। প্রচন্ড শীতের কারণে অনেকেই ঘরের বাহিরে কাজে যেতে পারছে না। পৌষের শুরুতেই ভোর হতে বিকেল পর্যন্ত ঘন কুয়াশায় আছন্ন হয়ে থাকছে গোটা জেলা।

গত কয়েক দিনে সূর্যের আলো দেখা যায়নি। দিন ও রাতে বইছে শৈত্য প্রবাহ। এতে করে দুর্বল হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। রাতে ভারী কুয়াশার কারণে শীত আরও তীব্র হচ্ছে। রাস্তাঘাটে যানবাহনে চলাচল যেমন ব্যাহত হচ্ছে তেমনি বাড়ছে দুর্ঘটনা। ছিন্নমুল মানুষেরা খড়কুঠা, কাগজ কুড়িয়ে যত্র-তত্র আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারন করছে।

আকাশ মেঘাচ্ছন্নের কারণে প্রচন্ড শীতের পুরাতন কাপড়ের দোকানে নিম্ন আয়ের মানুষ ভীড় জমাচ্ছে। এ সুযোগে দোকানীরা সুযোগ বুঝে বেশি দামে শীত বস্ত্র বিক্রি করছে। নিরূপায় হয়ে নি¤œ আয়ের মানুষ পুরাতন কাপড় বেশী দামে কিনেই শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। এমন কি অসহায়-দুঃস্থ মানুষরা অভাবের তাড়নায় বাধ্য হয়ে শৈত্য প্রবাহের মধ্যেই মাঠে কাজ করতে যাচ্ছে, আর যারা যেতে পারছে না তারা ভিক্ষায় নেমেছে।

এ দিকে গবাদি পশু নিয়েও বিপদগ্রস্থ হয়ে পড়েছে কৃষিজীবি মানুষ। গো-খাদ্যের দাম বেশি হওয়ায় একদিকে কৃষকরা গো-খাদ্য কিনতে হিমশিম খাচ্ছে, অপরদিকে প্রচন্ড শৈত্য প্রবাহের কারণে গবাদি পশু ঘর থেকে মাঠে বের করতে পারছে না। প্রচন্ড শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকলে দুঃস্থ ও দরিদ্র নি¤œ আয়ের মানুষদের মাঝে শীত নিবারণের জন্য অনতিবিলম্বে সরকারি ভাবে কম্বল সহ শীতবস্ত্র বিতরণের জরুরী প্রয়োজন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য