সংবাদ সম্মেলনঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের নাশকতা ও পুলিশ হত্যা মামলার আসামি জামায়াত-শিবির সমর্থক সন্ত্রাসী চক্রের হোতা সাদুল্যাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের প্রতাপ গ্রামের মৃত মফিজল হকের ছেলে মো. রতন মিয়াসহ তার সন্ত্রাসী চক্রের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে নলডাঙ্গাবাসি। আজ ২১ ডিসেম্বর শনিবার গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সন্ত্রাসী চক্রের মো. প্রিন্স মিয়া, মো. চন্দন মিয়া, মো. নয়ন মিয়ার ছেলে তূর্য মিয়া, খামার দশলিয়া গ্রামের মৃত গোলজার রহমানের ছেলে মো. জোব্বার ও জয়নাল আবেদীনকে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়।

নলডাঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান, খামার দশলিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী কৃষক লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত নুর আলম নান্টু সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, গত ১৪ ডিসেম্বর শনিবার বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির মিটিং করতে গেলে উক্ত সন্ত্রাসীরা তাকে ভূয়া ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আখ্যায়িত করে নানাভাবে উত্যক্ত করে এবং তার সাথে অশালিন আচরণ করে।

এব্যাপারে সে প্রতিবাদ করলে তারা আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে এবং গালিগালাজ করতে থাকে। এর জের দরে গত ১৫ ডিসেম্বর রোববার তার বসতবাড়িতে হামলা চালায় এবং তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে লোহার পাইপ দিয়ে বেদম মারপিট করে এবং তার পকেটে থেকে সাড়ে ৮৮ হাজার টাকা ছিনতাই করে নেয়। এসময় তার ছেলে আরিফুল আলম সীমান্তকেও বেদম মারপিট করা হয়।

এব্যাপারে সাদুল্যাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার না করায় তারা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। নান্টু মিয়া ও তার পরিবার- পরিজনদেরকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এতে নান্টু মিয়া ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। আগামী ইউপি নির্বাচনে তার জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে তার ভাবমুর্তি নষ্ট করতে তার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার, হয়রানি ও তাকে হত্যা করাও অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত নলডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মো. চান মিয়া জানান, তরিকুল ইসলাম নয়ন মিয়া আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ইউপি নির্বাচন করায় তাকে নলডাঙ্গা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে বহিস্কার করা হয়। পরে দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক তিনি সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বপ্রাপ্ত হন।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই নয়ন মিয়া তার সন্ত্রাসী চক্র তাকেও মারপিট করে এবং নানা অপপ্রচারে লিপ্ত হয়। তিনি আরও উল্লেখ করেন, শুধু নলডাঙ্গার সাধারণ মানুষ নয়, এই সন্ত্রাসী চক্রের অত্যাচারে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা বিপন্ন হয়ে পড়েছে। তিনি অবিলম্বে তাদের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি করেন। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আব্দুর রাজ্জাক ও আব্দুল মোত্তালিব।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য