নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে উত্তাল রয়েছে ভারত। বিক্ষোভে বিভিন্ন রাজ্যে শুক্রবার থেকে শনিবার পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ জনে। এছাড়া কয়েকশ মানুষ আটক করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, মীরাটে নিহত হয়েছে চারজন। দুজন করে ফিরোজাবাদ ও বিজনরে মারা গেছেন। সম্ভাল, কমপুর, বারাণসী এবং লখনউতে একজন করে মারা গেছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, শনিবার সকাল থেকেই উত্তর প্রদেশে রামপুরে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। ১৫০ জনকে আটক করা হয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা অভিযোগ করেন, পুলিশের গুলিতে মারা গেছে মানুষ। এছাড়া সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গেছে পুলিশ-বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ চলাকালীন পুলিশই গুলি চালিয়েছে। এছাড়া সংঘর্ষের সময় পাথর ছোড়া ও পুলিশের বেশ কয়েকটি গাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। তবে পুলিশ প্রশাসন জানিয়েছে, সংঘর্ষে অন্তত ৬ জন পুলিশ গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

উত্তর প্রদেশ পুলিশের ডিজি ওপি সিংহ বলেন, আমরা একটিও গুলি করিনি। বরং পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছে জনতা।

এদিকে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় সংঘর্ষ শুরু হওয়ার পর শুক্রবার রাত থেকেই বিজনৌর, মীরাট, ফিরোজাবাদ, কানপুর, সম্ভাল, মোরাদাবাদ, আলীগড়, এলাহাবাদসহ রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য