দিনাজপুর সংবাদাতাঃ সমন্বিত দিনাজপুর জেলা দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) অভিযান চালিয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের ২২ তম বিসিএস ক্যাডার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এবং অফিস সহকারীকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন-দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ খায়রুল ইসলাম । তিনি রংপুর জেলার সদর উপজেলার ধাপ শিমুলবাগ গ্রামের মৃত ইউসুফ আলী আহম্মেদের ছেলে। অপর জন একই অফিসের অফিস সহকারী সমর কুমার দেব। তিনি র নাম-। তিনি দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার পূর্ব জগন্নাথপুর গ্রামের শ্রী সাধন চন্দ্র দেবের ছেলে।

তাদেরকে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর ডেঙ্গু কীট ক্রয়, হাসাপাতালের চেয়ার, টেবিল,পর্দাসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম ক্রয়ের নামে ৫ লক্ষ ১৪ হাজার ২২০ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে।

১৯ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে দুর্ণীতি দমন কমিশন (দুদক) সমন্বিত দিনাজপুর জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আবু হেনা আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে তাদেরকে অফিস থেকে গ্রেফতার করা হয়।

সমন্বিত দিনাজপুর জেলা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলা সূত্রে জানা যায়, গ্রেফতার কৃতরাসহ আরো ২ জন পরস্পর যোগসাজসে ডেঙ্গু কীট ক্রয়, হাসাপাতালের চেয়ার, টেবিল,পর্দাসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম ক্রয়ের নামে ৫ লক্ষ ১৪ হাজার ২২০ টাকা আতœসাৎ করেন।

সমন্বিত দিনাজপুর জেলা দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) প্রাথমিক তদন্ত শেষে ৪ জনের নামে মামলা করার জন্য প্রধান কার্যালয়ের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। অনুমতি পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে মামলা রেকর্ড করেই অভিযান চালান। মামলার অপর আসামীরা হলেন-ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যাল লিঃ এর মেডিকেল প্রমোশন অফিসার পৌরাঙ্গ চন্দ্র ও হাকিমপুর উপজেলার মধ্যবাসুদেবপুর গ্রামের মৃত আরফ আলীর ছেলে মের্সাস বিদ্যুৎ ট্রের্ডাসের মালিক ঠিকাদার মোঃ শফিকুল ইসলাম বিদ্যুৎ।

সমন্বিত দিনাজপুর জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আবু হেনা আশিকুর রহমান দুই জনকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য