আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে গাইবান্ধায় মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে স্থানীয় শহীদ মিনারে ৩১ বার তোপধ্বনি মধ্য দিয়ে দিবসটির সূচনা হয়। পরে বীর শহীদদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ মাহবুব আরা বেগম গিনি এমপি, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড, জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, পৌর মেয়র এ্যাড. শাহ্ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবির মিলন, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিকসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও জাতীয়পার্টি, বিএনপি, জাসদ, জেলা বার আইনজীবী পরিষদ এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবি সংগঠন সমূহের পক্ষে পুষ্পমাল্য অর্পন করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৮ টায় স্থানীয় স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরা কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত প্রদর্শন করে।

এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে অন্যান্য কর্মসূচীর মধ্যে ছিল মুক্তিযুদ্ধের বিজয় স্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পন, শিশুদের চিত্রাংকন ও রচনা প্রতিযোগিতা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আলোচনা সভা, স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসন ও পৌরসভা একাদশের মধ্যে প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতা, স্থানীয় আসাদুজ্জামান বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজ মাঠে মহিলাদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, প্রামাণ্য চলচিত্র প্রদর্শন ইত্যাদি।

শাহ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিনের সভাপতিত্বে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম এমপি। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান সরকার আতা, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক, মুক্তিযোদ্ধা ওয়াশিকার মো. ইকবাল মাজু, মাহমুদুল হক শাহজাদা, গৌতম চন্দ্র মোদক ও শাহ শরিফুল ইসলাম বাবলু প্রমুখ।

সুন্দরগঞ্জেঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে যথাযথ মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে সোমবার প্রত্যুশে ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন শুভ-সূচনা করা হয়। এরপর স্থানীয় শহীদ মিনারে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বীর শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ, আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, আলোচনা সভা, কুচকাওয়াজসহ বিভিন্ন প্রতিযোগীতা, মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারে সম্মাননা প্রদান, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এরপর, থানা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানসমূহ শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করে। এসব কর্মসূচিতে ছিলেন- ব্যারিষ্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী এমপি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান- আশরাফুল আলম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার- সোলেমান আলী, সহকারি কমিশনার (ভূমি)- রাসেল মিয়া, পৌর মেয়র- আব্দুল্লাহ আল মামুন, থানা অফিসার ইনচার্জ- আব্দুল্লাহিল জামান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সাবেক কমান্ডর এমদাদুল হক বাবলু, সিরাজুল ইসলামসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। পরে বিভিন্ন প্রতিয়োগীতায় বিজয়ীদেরকে পুরষ্কৃত করা হয়। ছবি সংযুক্ত

পলাশবাড়ীঃ বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে স্থানীয় শহীদ মিনারে ৩১ বার তোপধ্বনি মধ্য দিয়ে দিবসটির সূচনা হয়। পরে বীর শহীদদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন, গাইবান্ধা-৩ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্যের পক্ষে, জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা এমপি’র পক্ষে, উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রসাশন, থানা পুলিশ, আওয়ামীলীগ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড, প্রেসক্লাব, জাতীয়পার্টি, বিএনপি, জাসদ ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন, বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনসহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবি সংগঠনের পক্ষে পুষ্পমাল্য অর্পন করা হয়। এরপর বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার শান্তি কামনা করে নীরবতা এবং বিশেষ মোনাজাত করা হয়। স্থানীয় সড়ক ও জনপথ বিভাগের অভ্যন্তরে এবং কিশোরগাড়ীর পশ্চিম রামচন্দ্রপুর বধ্যভূমিতে পুষ্পমাল্য অর্পনসহ বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে মহান বিজয় দিবস উদয্াপন করা হয়। এছাড়াও অফিস-আদালত, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান, বাসা-বাড়ী সমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
এদিকে সদরের এস.এম পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আনুষ্ঠানিক ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সমাবেশ ও সালাম গ্রহণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদ্যুৎ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মেজবাউল হোসেন ও থানা অফিসার ইনচার্জ মাসুদুর রহমান। এরপর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে কুচকাওয়াজ-ডিসপ্লে, যেমন খুশি-তেমন সাজো, শিশু-কিশোর-মহিলাদের বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ। দুপুরে এস.এম হাইস্কুল মাঠে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বীর মুক্তিযোদ্ধা-যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা ও সৌজন্য সাক্ষাৎকার এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ প্রশাসক মো. মেজবাউল হোসেনের সভাপতিত্বে¡ সভায় বক্তব্য রাখেন, গাইবান্ধা জেলা আওয়ামী লীগ উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাবেক এমপি আলহাজ্ব তোফাজ্জল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু বকর প্রধান, সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ শামিকুল ইসলাম সরকার লিপন, সহ-সভাপতি শহিদুল ইসলাম বাদশা, আলী মোস্তফা রেজা গোলাপ, উপজেলা পরিষদ ভাইস-চেয়ারম্যান এএসএম রফিকুল ইসলাম মন্ডল, আনোয়ারা বেগম, থানা অফিসার ইনচার্জ মাসুদুর রহমান ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মজিবর রহমান প্রমুখ।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আব্দুর রহমান সরকার। বীর মুক্তিযোদ্ধা-যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যসহ জাতির শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কামনা করে বিভিন্ন মসজিদ-মন্দির ও অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ মোনাজাত-প্রার্থনা, হাসপাতাল-এতিমখানায় উন্নত খাবার পরিবেশন, স্থানীয় ড্রীমল্যান্ড পার্ক শিশুদের জন্য উন্মুক্ত রাখা হয়। বিকেলে উপজেলা পরিষদ একাদশ বনাম সুধী মন্ডলীর প্রীতি ফুটবল খেলা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য