দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বীরগঞ্জ পৌরশহরে এমন অনেক কাজ আছে যা আইনত দ-নীয়, কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকায় প্রশাসনিক ভাবে কোন বাঁধা প্রাপ্ত হয় না। জনগণ প্রচলিত নিয়ম কানুন মেনে চলছে। যখন তখন যেখানে সেখানে সভা-সেমিনার উচ্চ শব্দে ভাষণ কিংবা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রচার-প্রচারণার মাইকিং এধরণের কার্যক্রম পৌরশহরের দীর্ঘদিন ধরেই চলে আসছে। শব্দবাজি এ সকল সমস্যার উপলব্ধি জনগণ আজ হারিয়ে ফেলেছে। কেউ কেউ বিরক্ত হয়ে কানে আগুল দিয়ে পথ চলছে।

এর জন্য একাগ্রতার অভাবে কোন প্রতিবাদ কেউ করতে পারে না। দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলা ও পৌরশহরে যখন তখন চলছে উচ্চ শব্দে মাইকিং।

বিশেষ করে কোচিং, ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বিদ্যালয় ভর্তি, বেসরকারি ভর্তি মাংস ব্যবসায়ীর মাইকিং, ছাগল হারানোর মাইকিং, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টারে বিশেষ ডাক্তারের প্রচার, কোন প্রতিষ্ঠানের বিশেষ ছাড় উপলক্ষে প্রচার মাইকিং, কম দামে চার্জার লাইট বিক্রির মাইকিং, বিভিন্ন জায়গায় পরিবহনের মাইকিং সহ বিভিন্ন প্রচারের উচ্চ শব্দের মাইকিং নিয়মিত চলে আসছে।

প্রচারের কোন নির্দিষ্ট সময় সীমা নেই। যখন তখন দেখা যায় উচ্চ শব্দে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে বা শহরের হাসপাতাল এলাকায় প্রচারণা। ভোর থেকে শুরু করে রাত অবদি কোন পরিবেশ, সময় না মেনে চলছে এই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের মাইকিং।

বীরগঞ্জ সরকারি কলেজ, অঙ্কুর শিক্ষা নিকেতন, পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ইব্রাহীম মেমোরিয়াল শিক্ষা নিকেতন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি অফিস ও আধা সরকারি, হাসপাতাল ক্লিনিক শব্দ দুষণে ভুগছে। শব্দ দূষণ আইন অনুযায়ী কোথাও কোন হাসপাতাল থাকলে সেটা ” নীরব এলাকা ” হিসেবে চিহ্নিত হবে।

এ সকল নীরব এলাকায় হর্ন বাজানো নিষেধ। এ সবের তোয়াক্কা না করে বীরগঞ্জ পৌরশহরে অবিরামভাবে চলছে এ ধরণের উচ্চ বাজী যা শব্দ দূষণ রুপ নিয়েছে। উচ্চ শব্দে একটি মানুষের কি কি ক্ষতি হতে পারে এ বিষয় মুঠোফোনে কথা হয় বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মোঃ জাহাঙ্গীর কবির এর সাথে।

তিনি জানান, উচ্চ শব্দ যে কোন সুস্থ মানুষের জন্য মারাত্মক সমস্যা হতে পারে। বিশেষ করে শ্রবণ শক্তি ক্ষমতা কমে যেতে পারে, এমনকি কানের পর্দা ফেঁটে যেতে পারে। এতে বেশি সমস্যা হয় শিশুদের। কোন ঘুমন্ত শিশু উচ্চ শব্দের কারণে ঘুম ভেঙ্গে যেতে পারে।

শিশুদের কানের পর্দা অনেক সফট থাকে তাই তাদের সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা বেশি হয়ে থাকে। জরুরী ভাবে প্রশাসনিক পদক্ষেপ নেওয়া না হলে শব্দ দূষণের কারণে নানা রোগে আক্রান্ত হবে বীরগঞ্জ পৌরবাসী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য