নবাবগঞ্জ(দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায় খাদ্যে বিষক্রিয়ায় সুমাইয়া আকতার(১২) নামে এক শিশু কণ্যার মৃত্যু হয়েছে। সে উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের কাদিরাপাড়া গ্রামের সোলাইমান আলীর কণ্যা। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডাঃ সোলায়মান হোসেন মেহেদি জানান গত মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে দাউদপুর ইউনিয়নের কাদিরাপাড়া গ্রামের সোলাইমান আলী(৩০) তার স্ত্রী রুলি বেগম(২৫) এবং শিশু কণ্যা সুমাইয়া আকতার(১২) নিজ বাড়ীতে খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য আসে।

চিকিৎসা চলাকালীন সোলাইমান আলীর অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাদের সকলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রিহম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। দিনাজপুর কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ মোজাফ্ফর হোসেন শিশুটির মৃত্যুর ঘটনা নিশ্চিত করে জানান এ ব্যাপরে তার দপ্তরে একটি ইউ,ডি মামলা হয়েছে এবং বুধবার লাশ ময়না তদন্ত করা হয়েছে। নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) অশোক কুমার চৌহান জানান বিষয়টি তিনি অবগত আছেন।

ময়না তদন্ত রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গৃহিত হবে। প্রতিবেশীরা জানান সোলাইমান তার শিশু কণ্যা সুমাইয়াকে নিয়ে সকালে টাকি মাছের ভর্তা দিয়ে ভাত খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। ওই খাদ্যে বিষক্রিয়া হয়েছে কিভাবে তা নিয়ে চলছে আলোচনা সমালোচনা। সোলাইমানের স্ত্রীর সঙ্গে খুব ভাল সম্পর্ক ছিলনা। মাঝে মাঝেই তার স্ত্রী পিতারবাড়ী গিয়ে থাকত। এমনকি সে পরকিয়াতেও আসক্ত ছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য