ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তার কেন্দ্রস্থলে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের কাছে ন্যাশনাল মনুমেন্ট পার্কে বোমা বিস্ফোরণে সামরিক বাহিনীর দুই সদস্য আহত হয়েছেন।

বিস্ফোরণে ব্যবহৃত বোমাটি একটি স্মোক গ্রেনেড ছিল বলে সন্দেহ করা হচ্ছে, জানিয়েছেন জাকার্তা পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তা।

মঙ্গলবারের এ ঘটনার সময় প্রেসিডেন্ট জোকো উয়িদোদো প্রাসাদে ছিলেন না বলে প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জানিয়েছেন।

সাম্প্রদায়িক কোনো হামলার জেরে বিস্ফোরণটি ঘটেছে কি না, তাৎক্ষণিকভাবে তা পরিষ্কার হওয়া যায়নি বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মুসলিম অধ্যুষিত দেশটি গত কয়েক বছর ধরে জঙ্গি সমস্যার মোকাবিলা করছে।

জাকার্তার পুলিশ প্রধান গাতোত এড্ডি প্রামোনো টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, পার্কে যে বিস্ফোরণটি ঘটেছে সেটি একটি স্মোক গ্রেনেড ছিল বলে সন্দেহ করা হচ্ছে এবং আহত দুই সামরিক কর্মকর্তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত ওই দুই কর্মকর্তা পার্কে ব্যায়াম করার সময় বিস্ফোরণটি ঘটে বলে জাকার্তার সামরিক প্রধান একো মার্গিয়োনো জানিয়েছেন।

বিস্ফোরণটি কোনো হামলার ঘটনা ছিল কি না, তদন্ত চলতে থাকায় তা ‘এখনই বলা যাচ্ছে না’ বলে জানিয়েছেন প্রামানো।

গত মাসে ২৪ বছর বয়সী এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র দেশটির মেদান শহরের পুলিশ দপ্তরের সামনে বিস্ফোরণে নিজেকে উড়িয়ে দেন। ওই ঘটনায় আরও ছয় জন আহত হয়েছিল।

এই হামলাটির সঙ্গে ইসলামিক স্টেটের দ্বারা অনুপ্রাণিত ইন্দোনেশিয়ার জঙ্গিগোষ্ঠী জামাহ আনশারুত দৌলাহ-র (জেএডি) সম্পর্ক ছিল। দেশটিতে চালানো ধারাবাহিক কয়েকটি হামলার জন্য এই গোষ্ঠীটি দায়ী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য