সংবাদ সম্মেলনঃ বিরলের ধর্মপুর ইউপি’র কালিয়াগঞ্জ বাজারে কালিয়াগঞ্জ মেমোরিয়াল ক্যাডেট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও সমাজসেবক আব্দুল মজিদ মাষ্টারকে জড়িয়ে চ্যানেল আই এ সংবাদ পরিবেশনের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-অভিভাবকবৃন্দ।

সোমবার সকালে বিদ্যালয় চত্ত্বরে জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও সমাজসেবক আব্দুল মজিদ মাষ্টার। এ সময় বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক আবু সাঈদ, ইউপি সদস্য সামসুদ্দিন আহমেদ, বিদ্যোৎসাহী সদস্য রাবেয়া বেগম, অভিভাবক মাসুদ রানা, তোজাম্মেল হক, কুলসুমা বেগম, মোকসেদুর রহমান, আতিকুর রহমান ডালিম, মনিরুজ্জামান মানিক, মোশারফ হোসেন, রকেট, মনোয়ারুল ইসলাম, হাসমত আলী, বর্তমান প্রধান শিক্ষক কোমল চন্দ্র বর্মন প্রমূখ উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন এবং সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের সন্তোষজনক উত্তর প্রদান করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল মজিদ মাষ্টার বলেন, ২০১৪ খ্রিস্টাব্দে এলাকার কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ডিজিটাল শিক্ষা ব্যবস্থাপনায় পাঠদানের লক্ষ্যে এলাকার বিদ্যোৎসাহী ব্যক্তিবর্গকে সাথে নিয়ে শিক্ষিত বেকার যুবকদের সমন্বয়ে উপস্থিত সকলের সম্মতিতে প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নিযুক্ত করে একটি ম্যানেজিং কমিটির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলা হয়।

প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনার জন্য আবু সাঈদকে প্রধান শিক্সক হিসাবে নিয়োগ প্রদান করে পাঠ্যক্রম পরিচালনার জন্য অন্যান্য শিক্সকদের নিয়োগ দেয়া হয় এবং সুনামের সাথে প্রতিষ্ঠানটি পারিচালনা করা হয়। পরবর্তীতে আবু সাঈদ অন্যত্র চলে যাওয়ায় সাদ্দাম হোসেনকে প্রধান শিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব প্রদান করা হয়।

এছাড়াও প্রতিষ্ঠানটিতে চাকুরী ও বৈবাহিক কারণে অনেক শিক্ষক অন্যত্র চলে গেলে সেকল শিক্ষকের বিপরীতে নতুন শিক্ষক নিয়োগ করে পাঠদান চলমান রাখা হয়। এ বছর সাদ্দাম হোসেন পাঠদানে গাফিলতি, অনুপস্থিতি, পরিচালনা পরিষদের সিদ্দান্তকে অবমাননা ও আর্থিক অনিয়মে জড়িয়ে পড়লে এবং প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষা ব্যবস্থাপনা ভেঙ্গে যেতে বসলে ২২ জুলাই ২০১৯ তারিখে তাঁকে প্রধান শিক্ষকের পদ হতে অব্যাহতি প্রদান করা হয় এবং কোমল চন্দ্র বর্মনকে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব অর্পন করা হয়।

স্থানীয় বনবিভাগে নিধন নয়, তিনি বনানয়নে জড়িত এবং বিষয়টি এলঅকাবাসীসহ কর্তৃপক্ষের নিকট জানলেই পরিষ্কার হবে বলে জানান। কিন্তু একটি মহলের স্বার্থ্য উদ্ধারের হাতিয়ার হিসাবে সাদ্দাম হোসেন উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে অপপ্রচার শুরু করে চ্যানেল আই এর দিনাজপুরস্থ স্টাফ রিপোর্টারকে মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন তথ্য সরবরাহ করে সংবাদ পরিবেশন করায়। প্রকৃত ঘটনা যাচাই-বাছাই করে সাংবাদিক ভাইদের ভবিষ্যতে সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন এবং প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার চলমান মান উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে সযোগিতার আহ্বান জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য