দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ২৭ নভেম্বর বুধবার দিনাজপুর সরকারি সিটি কলেজ আয়োজিত কলেজের হলরুমে মহান বিজয় দিবস-২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে গণহত্যা ও নির্যাতন-১৯৭১ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

দিনাজপুর সরকারি সিটি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মোজাম্মেল হক এর সভাপতিত্বে মূল আলোচ্যক হিসেবে আলোচনা করেন দিনাজপুর সেক্টর কমান্ডার ফোরামের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক আলী ছায়েদ, জেলা বাসদের নেতা সারোয়ারুল হাসান ক্লিপ্টন, বাংলাদেশ সোসাল ডেভেলপমেন্ট একাডেমি (বিএসডিএ) এর নির্বাহী পরিচালক ড. মোঃ আব্দুস ছালাম, সটি কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মিতা চক্রবর্তী।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক নূরে আলম সিদ্দিকী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রভাষক (বাংলা বিভাগ মোঃ কাদেরুল ইসলাম। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ দেলোয়ার হোসেন। বক্তারা বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে গণহত্যা ও নির্যাতনের প্রকৃত ইতিহাস আমাদের প্রজন্ম সন্তানদের জানাতে হবে।

১৯৭১ সালে পাক সেনারা অপারেশন সার্চলাইট নামে নীল নকশার মাধ্যমে ২৫ মার্চ থেকে ২৭ মার্চ পর্যন্ত ঢাকায় দেশের শ্রেষ্ঠ বুদ্ধিজীবিদের হত্যা করে। তখন থেকেই পর্যায়ক্রমে সারা দেশে বাঙ্গালী জাতিসত্তাকে ধ্বংস করার জন্য গণহত্যা ও নির্যাতন চালায় পাক বাহিনী।

বক্তারা আরো বলেন, গণহত্যা মানে কোন জাতিকে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস বা নিশ্চিহ্ন করা। সেই প্রেক্ষাপটে পাকিস্তানী সৈন্যরা পরিকল্পীতভাবে বাঙালীদের উপর গণহত্যা ও নির্যাতন চালিয়েছিল। আমরা চাই সরকারিভাবে সারাদেশের বধ্যভূমিগুলো চিহ্নিত করা এবং তার উদ্যোগ গ্রহণ করা হলে আমাদের প্রজন্মরা স্বাধীনতর প্রেক্ষাপট জানতে পারবে।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হক বলেন, এখনো মুক্তিযুদ্ধের অনেক ঘটনা অজানা রয়ে গেছে। বর্তমানে গবেষণা করে সেগুলোকে লীপিবদ্ধ করা হচ্ছে। এগুলো শিক্ষার্থীদের মাঝে জানাতে পারলে তাদের মাঝে দেশপ্রেম সৃষ্টি হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য