দিনাজপুর সংবাদাতাঃ অবাঞ্চিত নীতিহীন নেতৃত্বের পরবর্তীতে স্বচ্ছ সংগ্রামী নেতৃত্বের কাছে বর্তমানে নশিপুরের শ্রমিকদের নেতৃত্ব অর্পিত হয়েছে। যার ফলে কর্তৃপক্ষসহ একটি কুচক্রি মহল অবাঞ্চিত, বহিষ্কৃত, বাতিলকৃত তথাকথিত কিছু ব্যক্তিবর্গকে সাথে নিয়ে শ্রমিক আন্দোলন এবং দাবি-দাবাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার পায়তারা করছে। নানামুখি ষড়যন্ত্র করে যে নীল নকশা তৈরি করার চেষ্টা করছে তা কখনো সফল হবে না।

যারা নিজেরাই ব্যানার-ফেস্টুন, পোষ্টার-সাইনবোর্ড ভাংচুর করে নিজেদের দোষ অন্যদের উপর চাপাতে চাইছেন তাদের এ আশা বিফলে যাবে। সুস্থ্য রাজনীতিকে অসুস্থ্যতে পরিণত করে বৈধ নেতাদের উপর দোষ চাপাতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন তাদের হুশিয়ারী করে বক্তারা বলেন, ইতিপূর্বেও শ্রমিকদেরকে নিয়ে অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে কোন লাভ হয়নি। বঙ্গবন্ধুর গড়া জাতীয় শ্রমিক লীগের সৈনিকেরা মিথ্যা মামলা-হামলা ও হয়রানি করে তাদের দাবিয়ে রাখতে পারেনি ভবিষ্যতেও পারবে না। অসুস্থ্য রাজনীতি ছেড়ে সুস্থ্য রাজনীতিতে ফিরে আসার এটাই সময়। অসুস্থ্য রাজনীতি কখনো ভালো ফলাফল বয়ে আনে না।

২৬ নভেম্বর মঙ্গলবার জাতীয় শ্রমিক লীগের অন্তর্ভুক্ত নশিপুর ভিত্তি পাটবীজ খামার বিএডিসি’র আয়োজনে বিএডিসি প্রধান ফটকের সামনে জাতীয় শ্রমিক লীগের জেলা ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দের নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগ প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধনে বক্তারা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, দিনাজপুর জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একেএম হাফিজার রহমান, দিনাজপুর জেলা জাতীয় যুব শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদুল ইসলাম বকুল, জাতীয় শ্রমিক লীগ (প্রাথমিক কমিটি) নশিপুর ভিত্তি পাটবীজ খামার বিএডিসি দিনাজপুর’র সভাপতি নিতাই চন্দ্র শীল, সাধারণ সম্পাদক হামিদুল ইসলাম, কার্যকরি সভাপতি গিয়াস উদ্দীন, দপ্তর সম্পাদক মমতাজ আলী, সাবেক সভাপতি আব্দুল জব্বারসহ শতাধিক শ্রমিক নেতাকর্মী মানববন্ধনে অংশগ্রহন করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য