আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে নবান্ন উৎসব পালিত হয়েছে। এসো মিলি সবে, নবান্নের উৎসবে এই শ্লোগানে র‌্যালি, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, যেমন খুশি তেমন সাজ, পিঠা উৎসব, ধান কাটা প্রতিযোগিতাসহ দিনব্যাপী নানা আয়োজনে এই উৎসব পালিত হয়। উৎসবে চিরায়ত বাংলার ঐতিহ্য পিঠার পসরা সাজিয়ে বসেন বিভিন্ন সংগঠন।

শনিবার (২৩ নভেম্বর) গাইবান্ধা স্বাধীনতা প্রাঙ্গনে প্রধান অতিথি হিসেবে নবান্ন উৎসবের উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ ও গাইবান্ধা-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য মাহাবুব আরা বেগম গিনি। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন।

এসময় পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, পৌর মেয়র এ্যাড. শাহ্ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবীর মিলন, সিভিল সার্জন এবিএম আবু হানিফ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আলমগীর কবির, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ডিডিএলজি মো. রোখজানা বেগম, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. মাসুদুর হরমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পদক আবু বকর সিদ্দিক ও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মো. শাহরিয়ার উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা পর্বে হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি বলেন, আমরা যে উৎসবগুলোর মধ্য দিয়ে বাঙালির পরিচয়, ঐতিহ্য তুলে ধরি তার মধ্যে নবান্ন অন্যতম। বহু শতাব্দী ধরে পালিত হয়ে আসা নতুন ফসল ঘরে তোলার উৎসবটি বাঙালির ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির একটি অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। নবান্ন উৎসবের সঙ্গে মিশে আছে বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি। আবহমান বাংলার কৃষি ঐতিহ্য নবান্নের সঙ্গে এই প্রজন্মের শিশু-কিশোরদের পরিচয় করিয়ে দিতে হবে।

এ উপলক্ষে সকালে জেলা প্রশাসকের বাসভবনের সামনে থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন প্রদক্ষিণ করে স্বাধীনতা প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করা হয়।

এছাড়া সদর উপজেলার থানসিংপুর গ্রামে কৃষক পর্যায়ে ধান কাটা প্রতিযোগতার আয়োজন করা হয়। এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন ও পুরস্কার বিতরন করেন জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন। এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, সিভিল সার্জন এবিএম আবু হানিফ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আলমগীর কবির, জেলা কৃষি সসম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. মাসুদুর হরমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পদক মো. আবু বকর সিদ্দিক, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহ্ সারোয়ার কবির ও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মো. শাহরিয়ার প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য