সিরিয়ায় কয়েক’শ ইরানী লক্ষবস্তুতে বিমান হামলা করার দাবি করেছে ইসরায়েল সামরিক বাহিনী। মঙ্গলবার ইসরায়েল নিয়ন্ত্রিত গোলান মালভূমিতে চালানো রকেট হামলার জবাবে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে সামরিক বাহিনী। বুধবারের এই হামলায় অন্তত ১১ জন নিহত হয়েছেন। খবর এপি’র।

লন্ডন ভিত্তিক যুদ্ধ মনিটরিং একটি গ্রুপ জানিয়েছে, ইসরায়েলের হামলায় ১১ জন নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে সাত জন ইরানী নাগরিক বলে তারা ধারণা করছেন।

তবে সিরিয়ান রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ‘সানা’ জানিয়েছে, দামেস্কের দক্ষিণে সাসার একটি বাড়িতে মিসাইল হামলায় দুই জন নিহত হয়েছেন। তাছাড়া কুদসায়া এলাকায় কয়েকজন আহত হয়েছেন।

ইসরায়েল সামরিক বাহিনী বলেছে, তারা ইরানের এলিট ফোর্স কুদসের সামরিক ঘাঁটিতে মিসাইল হামলা চালিয়েছে। এতে এলিট ফোর্সের অস্ত্রাগার এবং ভূমি হতে আকাশে নিক্ষেপণ যোগ্য মিসাইল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই হামলা প্রতিহত করতে গিয়ে সিরিয়ান ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইসরায়েল।

তবে সিরিয়া দাবি করেছে, দেশটির সামরিক বাহিনী ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা সফলতার সঙ্গে প্রতিহত করেছে।

এক বিবৃতিতে ইসরায়েল সেনাবাহিনী বলেছে, মঙ্গলবার ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে ইরানের রকেট হামলা এটাই প্রমাণ করে যে, সিরিয়ায় ইরানের অবস্থান ইসরায়েলের নিরাপত্তার জন্য হুমকি। ২০১৮ সালের পর গোলান মালভূমিতে ইরান এখন পর্যন্ত ছয় বার হামলা চালিয়েছে। তাই ইরানের বিরুদ্ধে ইসরায়েলের হামলা অব্যাহত থাকবে বলেও নিশ্চিত করেছে সেনাবাহিনী।

মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে ইরানের আধিপত্য মোটেই ভাল চোখে দেখছে না ইসরায়েল। মঙ্গলবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, ‘আমাদের উপর যারাই হামলা করুক না কেন, আমরা তা প্রতিহত করবো। নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে আক্রমণাত্মক হবে ইসরায়েল।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য