আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট: লালমনিরহাটে দায়রা জজ আদালতের বারান্দায় দুই নারীকে উত্ত্যক্ত করায় দুই আসামিকে দেওয়া জামিন বাতিল করেছেন বিচারক।

গতকাল জেলার দ্বিতীয় দায়রা জজ আদালতের বিচারক মারুফ হোসেন কক্ষে থাকার সময় তার আদালতের বারান্দায় এ ঘটনা ঘটে।

দুই মাদক মামলার আসামির সঙ্গে একই এলাকার অপর দুই নারীর হাতাহাতির ঘটনায় দুই আসামির পূর্ব জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ নিয়েছেন বিজ্ঞ বিচারক মারুফ হোসেন।

কারাগারে পাঠানো আসামিরা হলেন, আদিতমারী উপজেলার দীঘলটারি এলাকার আমির হোসেনের ছেলে রাশিদুল ইসলাম (২৮) ও রাবিউল ইসলাম (২৫)। তাদের বিরুদ্ধে আদিতমারী থানায় মাদক মামলা রয়েছে। সেই মামলায় দুই সহোদর জামিনে ছিল। রোববার (১৭ নভেম্বর) বিকাল ৪টার দিকে সংশ্লিষ্ট আদালতে হাজিরা দিতে আদালতের বারান্দায় অপেক্ষা করছিল তারা। সে সময় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার শিকার দুই নারী জানান, নজরুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করতে আদালত চত্বরে গিয়েছিলেন তারা। সেখান থেকে ফেরার সময় রাশিদুল ও রাবিউল তাদের উত্ত্যক্ত করে। তারা এর প্রতিবাদ জানান। তাদের দাবি, এ সময় ওই দুই ব্যক্তি তাদের মারধর করেন।

দায়রা জজ আদালত ও কোর্ট পুলিশ সূত্র জানায়, রাশিদুল ও রাবিউল দ্বিতীয় দায়রা জজ আদালতের বারান্দায় হাজিরা দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করার সময় ওই দুই নারীকে উত্ত্যক্ত করে। এ সময় দুই নারী প্রতিবাদ জানান। পরে কথা কাটাকাটি হলে রাশিদুল ও রাবিউলের শার্টের কলার ধরে উত্যক্ত করার প্রতিবাদ জানান দুই নারী। এতে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি দ্বিতীয় দায়রা জজ মো. মারুফ হোসেনের নজরে পড়ে। তিনি পুলিশকে চার জনকেই আটক করার নির্দেশ দেন। পরে আটক চার জনের জবানবন্দি নিয়ে রাশিদুল ইসলাম ও রাবিউল ইসলামের আগের জামিন বাতিল করে তাদের কারাগারে পাঠানোর এবং দুই নারীকে ছেড়ে দেওয়ার আদেশ দেন।

লালমনিরহাট কোর্ট পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (এসআই) মুসা আলম জানান, আদালতের আদেশ তারা সঙ্গে সঙ্গে কার্যকর করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য