হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মোঃ আবুল কাসেম বলেছেন, এবার থেকে হাবিপ্রবিতে ভর্তি ইচ্ছুক প্রতিবন্ধীদের জন্য কোটা নির্ধারণ করা হবে। বাংলাদেশের মধ্যে পুরুষের চেয়ে নারীরা অনেক বেশী কাজ করে। কিন্তু তাদের মূল্যায়ন হয় না। উল্টে তারাই বিভিন্নভাবে নির্যাতিত হন। আমরা মনে করি স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সমঝোতা থাকলে অনেকাংশে পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ করা সম্ভব।

নারীর প্রতি সহিংতা প্রতিরোধ করতে আমাদের মূল্যবোধ সৃষ্টির মাধ্যমে দৃষ্টিভঙ্গীর পরিবর্তন খুবই প্রয়োজন। “সংসার সুখের হয় রমনীর গুণে, যদি গুনবান পতি থাকে তার সনে”। তাই মুল্যবোধ সৃস্টি করতে পরিবার থেকেই শুরু করতে হবে। পাশাপাশি শিক্ষা কারিকুলামে এসব সংযোজন করতে হবে।

বৃহস্পতিবার হাবিপ্রবি দিনাজপুর ও সেন্টার ফর ডিজ্্যাবিলিটি ইন ডেভলপমেন্ট (সিডিডি) যৌথ আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় “ মর্যাদায় গড়ি সমতা ও নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ” শীর্ষক সেমিনারে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপর্যুক্ত কথাগুলো বলেন।

হাবিপ্রবির শিক্ষক প্রফেসর ড. বিকাশ চন্দ্র সরকার এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিডিডি’র নির্বাহী পরিচালক এ.এইচ.এম নোমান খান, হাবিপ্রবির কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার, রেজিস্টার প্রফেসর ড. মোঃ ফজলুল হক।

কীনোট পেপার উপস্থাপনা করেন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন এর প্রতিনিধি নাজরানা ইয়াসমিন হীরা। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন হাবিপ্রবি’র প্রফেসর ড. ফাহিমা খানম, নাজমুল বারী।

মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন মহিলা পরিষদের ড. মারুফা বেগম, হাবিপ্রবির প্রফেসর সাজ্জাদ হোসেন সরকার, কাউন্সিলর মাসতুরা বেগম পুতুল, ইউপি সদস্যা কুলসুম আরা, শফিকুল ইসলাম, শিক্ষার্থী রুবেল ইসলাম, মোখলেস, আক্কাশ আলী প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য