ইভো মোরালেস পদত্যাগ করে দেশ ছাড়ার পর বলিভিয়ার সিনেটের ডেপুটি প্রধান জিনাইন আনিয়েজ নিজেকে দক্ষিণ আমেরিকার দেশটির অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষণা করেছেন।

মঙ্গলবার কংগ্রেসে এ ঘোষণা দেন তিনি; কিন্তু এ সময় মোরালেসের পার্টির সদস্যরা কংগ্রেসের অধিবেশন বর্জন করায় কোরাম সংকটে প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার নিয়োগে প্রয়োজনীয় সমর্থন ছিলনা বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

মোরালেসের পদত্যাগের পর ভাইস প্রেসিডেন্ট আলভারো গার্থিয়া, সিনেটের নেতা আদ্রিয়ানা সালভাতিয়ারা ও হাউস অব ডেপুটিসের নেতা ভিক্টর বোর্দা পদত্যাগ করায় সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট পদের জন্য তিনিই সামনে আছেন বলে কংগ্রেসে দাবি করেন বিরোধীদলীয় সিনেটর আনিয়েজ, জানিয়েছে বিবিসি।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে শিগগিরই নতুন নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

রাজনৈতিক আশ্রয়ে মেক্সিকোতে যাওয়ার পর বলিভিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেসকে স্বাগত জানান মেক্সিকোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্সেলো এব্রাদ।

এর আগে অস্থায়ীভাবে সিনেটের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করেন তিনি। এরপর প্রেসিডেন্ট পদের জন্য সাংবিধানিকভাবে তিনিই সামনে আছেন বলে জানান।

তাকে নিয়োগ দেওয়ার জন্য ডাকা কংগ্রেসের অধিবেশন বর্জন করে মোরালেসের দল ‘মুভমেন্ট ফর সোশালিজম’। প্রেসিডেন্ট হিসেবে আনিয়েজের নিয়োগকে অবৈধ বলে দাবি করেছে দলটি।

আনিয়েজকে ‘অভ্যুত্থানের ইন্ধনদাতা ডানপন্থি সিনেটর’ অভিহিত করে তার ঘোষণার নিন্দা করেছেন মেক্সিকোয় স্বেচ্ছা নির্বাসনে যাওয়া মোরালেস। নিজের জীবন নিয়ে শঙ্কার কারণে মেক্সিকোতে রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার মেক্সিকোতে বিমান থেকে নামার পর মোরালেস তার রাজনৈতিক ‘লড়াই’ চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় জানিয়েছেন বলে খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

২০ অক্টোবরের নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ নিয়ে সৃষ্ট প্রতিবাদ-বিক্ষোভে অন্তত তিন জন নিহত ও বহু লোক আহত হওয়ার পর সেনাবাহিনী, পুলিশসহ বিভিন্ন মহলের চাপের মুখে পদত্যাগ করেন মোরালেস।

দেশ ছাড়ার আগে নিজের সমর্থকদের ‘অন্ধকারের শক্তিগুলোকে’ প্রতিহত করার আহ্বান জানান তিনি এবং ‘অভ্যুত্থানের’ মাধ্যমে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য