আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাটঃ নব্বইয়ের গণঅভ্যুত্থানে পুলিশের গুলিতে শহীদ নুর হোসেনকে ‘নেশাখোর’ বলে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি যে বক্তব্য দিয়েছেন তার তীব্র প্রতিবাদ ও প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বিএসবি-মাহাবুব)’র সম্মেলন প্রস্তুত কমিটি’র আহবায়ক কমরেড শওকত হোসেন আহম্মেদ।

তিনি সোমবার দুপুরে এ প্রতিবেদকের সাথে মোবাইল ফোনে স্বাক্ষাৎকারে বলেন, আমি যে মিছিলে ছিলাম সেই মিছিলের সামনে ছিলেন নুর হোসেন। পুলিশের গুলিতে নুর হোসেন শহীদ হয়েছেন এটা চরম সত্য। ওই সময় আমাকেসহ ৩ জনকে পুলিশ আটকও করে ছিলো। শহীদ নুর হোসেনকে নিয়ে জাতীয় পার্টির মহা সচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা’র বক্তব্য কষ্টকর। আমি তার এ বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবী করছি।

কমরেড শওকত হোসেন আহম্মেদ বলেন, ওই দিন ৫ দলের সৈরাচার বিরোধী মিছিল নিয়ে আমরা বিজয়নগর পানির ট্যাংকি থেকে বের হয়ে জিরো পয়েন্টের দিকে যেতে থাকি। পথিমধ্যে একটি ছেলে (নুর হোসেন) গায়ে ‘সৈরাচার নিপাত যাক’ লেখা নিয়ে আমাদের মিছিলে প্রবেশ করেন।

জিপিও সংলগ্ন পাবলিক টয়লেটের কাছে গেলে পুলিশ চারদিক থেকে মিছিলটি ঘিরে ফেলে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় সবাই পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ গুলি করেন। পুলিশের গুলিতে নুর হোসেন গুলিবিদ্ধ হয়। ওই সময় স্বপন, মোস্তাক হোসেন (বর্তমানে গণফোরাম নেতা) ও আমাকে আটক করে পুলিশ নিয়ে যায়।

কিছুদুর গিয়ে আমাকে নির্যাতন করে ফুটপাতে ফেলে দিয়ে বাকি দু’জনকে নিয়ে যায় পুলিশ। যে নুর হোসেন গণতন্ত্রের জন্য সৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে শহীদ হলেন সে সৈরাচারের দলের নেতা যখন নুর হোসেনকে নিয়ে কুরুচিমূলক বক্তব্য দেয় তা সত্যি দুঃখজনক। আমরা তার এ বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদসহ প্রত্যাহারের দাবী জানাচ্ছি।

বাসদ নেতা কমরেড শওকত আরও বলেন, মশিউর রহমান রাঙ্গার বড় ভাই লেবু আমার বন্ধু। সেদিক থেকে রাঙ্গা আমার ছোট ভাই ও পূর্ব পরিচিত। সামনে দেখা পেলে আমি নিজেই তাকে জিজ্ঞাসা করবো কীভাবে সে এ রকম বক্তব্য দিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য