সিরিয়ার ২০২১ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে এবং নির্বাচনে যে কেউ প্রার্থী হতে পারবে বলে দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ জানিয়েছেন।

প্রেসিডেন্ট পদের জন্য অসংখ্য প্রতিদ্বন্দ্বী থাকতে পারে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

সোমবার রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে পরিচালিত টেলিভিশন চ্যানেল আরটিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন আসাদ, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

“শেষবার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আমরা তিন জন ছিলাম। পরেরবার যতোজন প্রার্থী হতে চাইবেন ততোজনই হতে পারবেন। নিশ্চয় তখন আমরা অনেক প্রার্থী পাবো,” বলেছেন তিনি।

সিরিয়ার ২০১৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিপুল জয় পেয়েছিলেন আসাদ। ওই নির্বাচনে তার দুই জন প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন। কিন্তু তখন প্রতিদ্বন্দ্বীরা তার জয়কে ভণ্ডামি বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন।

সিরিয়ার বাসিন্দাদের মধ্যে সুন্নি আরবরা সংখ্যাগরিষ্ঠ হলেও রাজনৈতিক ক্ষমতা প্রধানত শিয়া আলাওয়াইত গোষ্ঠীর অভিজাতদের হাতেই থেকেছে। ২০১১ সালে ‘আরব বসন্তের’ প্রভাবে সিরিয়ায় সরকারবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হলে পরে তা জটিল গৃহযুদ্ধে রূপ নেয় এবং তাতে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক শক্তিগুলো জড়িয়ে পড়ে।

পিতার উত্তরসূরী হয়ে ২০০০ সালে ক্ষমতায় আসা বাশার আল আসাদ রাশিয়া ও ইরানের সহায়তায় গৃহযুদ্ধে জয়ী হয়ে ইতোমধ্যে দেশের ওপর কর্তৃত্ব প্রায় পুনঃপ্রতিষ্ঠা করে নিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য