দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বিরামপুরে মফেজ উদ্দিন নামের এক কাজীর বিরুদ্ধে বিয়ে নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে উঠেছে। এই ঘটনায় ভূক্তভোগী সৈয়দ রাশেদুজ্জামান (২৬) নামের এক ব্যক্তি ওই কাজির বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দাখিল করেছেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে কাজী মফেজ উদ্দিনকে গ্রেফতার করে দিনাজপুর কারাগারে পাঠিয়েছেন।

গ্রেফতার কৃত কাজী মফেজ উদ্দিন সরকার উপজেলার জোতবানি ইউনিয়নের কেটরাপাড়া গ্রামের ফয়েজ উদ্দিন সরকারের ছেলে। বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো.মনিরুজ্জামান মনির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

থানার এজাহার সূত্রে জানাযায়, বিরামপুর উপজেলার বিনাইল ইউনিয়নের অচিন্তপুর গ্রামের সৈয়দ পয়গম্বর আলীর ছেলে সৈয়দ রাশেদুজ্জামান (২৬) পাশর্^বর্তী চাপড়া গ্রামের লুৎফর রহমানের মেয়ে শিরিনাকে (২৪) গত ২৯ সেপ্টেম্বর জোতবানী ইউনিয়নের কাজী মফেজ উদ্দিন সরকার এর কাজী অফিসে বিয়ে করেন। বিয়ের সময় কাজী মফেজ উদ্দিন ৫ হাজার টাকা নিলেও বিয়ে রেজিষ্ট্রির কোন কাগজ দেন নাই।

রাশেদুজ্জামান জানান, বিয়ের কাগজ পত্রের বিষয়ে কাজী মফেজ উদ্দিনের নিকট বহুবার যোগাযোগ করেও তিনি কোন কাগজ দেন নাই। পরে অবশেষে ঐ কাজী বিয়ে রেজিষ্ট্রির কাগজ দিতে দশ হাজার টাকা দাবি করেন।

বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো.মনিরুজ্জামান জানান, অতিরিক্ত টাকা দাবি ও রেজিষ্ট্রির কাগজ না পেয়ে রাশেদুজ্জামান বৃহস্পতিবার (৭ নভেঃ) বিরামপুর থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ কাজী মফেজ উদ্দিনকে আটক করে দিনাজপুর কারাগারে পাঠিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য